দাদার পর ভাই, ভারতীয় দলে ডাক পেলেন বাংলার অভিষেক পোড়েল

দাদার পর ভাই, ভারতীয় দলে ডাক পেলেন বাংলার অভিষেক পোড়েল

আরোহী নিউজ ডেস্ক: করোনা আক্রান্ত ভারতীয় অনুর্ধ্ব-১৯ দল। বিশ্বকাপ চলার মাঝেই চিন্তা বেড়েছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট সহ বোর্ডের। সেই সমস্যা সমাধানের রাস্তাতেই হাঁটা সুরু বোর্ডের। সময় নষ্ট করতে রাজি নয় ভারতীয় দল। অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের জন্য পাঁচজন রিজার্ভ ক্রিকেটার পাঠানোর ব্যবস্থা করল বোর্ড। আর সেই দলেই সুযোগ মিলল আরও এক বঙ্গ তনয়ের। দাদার পর এবার অনুর্ধ্ব-১৯ ভারতীয় দলে ডাক পেলেন অভিষেক পোড়েলও। অনুর্ধ্ব-১৯ দলের জন্য পাঁচ ক্রিকেটারকে পাঠানোর সিদ্ধান্ত বোর্ডের। অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের মঞ্চে দ্বিতীয় ম্যাচে নামার আগেই বিরাট ধাক্কা লাগে ভারতীয় শিবিরে। করোনায় আক্রান্ত হয় ভারতীয় অনুর্ধ্ব-১৯ দলের ছয় ক্রিকেটার। ম্যাচ শুরুর আগে অধিনায়ক ইয়াশ ধুল সহ আরও পাঁচজন ক্রিকেটারের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। আর তাতেই চিন্তায় পড়ে যায় ইন্ডিয়া টিম ম্যানেজমেন্ট। দ্বিতীয় ম্যাচে নামার আগে তো প্রথম একাদশ গড়া নিয়েই চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন ভারতীয় দলের কোচ সহ অন্যান্য সাপোর্ট স্টাফরা।

যদিও শেষপর্যন্ত ১১ জন ক্রিকেটার নামাতে পেরেছিল ভারতীয় অনুর্ধ্ব-১৯ দল। আর সেই ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে জিতে কোয়ার্টার ফাইনালের রাস্তা কার্যত পাকা করে ফেলেছে ভারতীয় অনুর্ধ্ব-১৯ দল। শনিবার উগান্ডার বিরুদ্ধে তারা গ্রুপের শেষ ম্যাচে নামবে। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে কিছুতেই চিন্তামুক্ত হতে পারছিলেন না বোর্ড কর্তা সহ ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। যেভাবে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন ক্রিকেটাররা, ভবিষ্যতেও যে অন্য কেউ আক্রান্ত হবেন না সেই নিশ্চয়তা কেউই দিতে পারছে না। আর এমন পরিস্থিতি হলে তখন প্রথম একাদশ মাঠে নামানোই প্রশ্নের মুখে পড়ে যাবে। আর সেই সমস্যা এড়াতেই দ্রুত ব্যবস্থা নিতে চাইছিলেন বোর্ড কর্তারাও। আর সবদিক বিচার করে পাঁচজন রিজার্ভ ক্রিকেটার পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। তিন বছর আগে এই অনুর্ধ্ব-১৯ ভারতীয় দলের হয়েই দুরন্ত পারফরম্যান্স করে নজর কেড়েছিলেন ঈশান পোড়েল। এবার সেই একই মঞ্চে ডাক পেলেন তাঁরই ভাই অভিষেক পোড়েলও। এছাড়াও রয়েছেন উদয় শাহরান, রিশিথ রেড্ডি, অন্স গোসাই এবং পিএস সিং রাঠোর। আর বোর্ডের এই সিদ্ধান্তে খানিকটা হলেও স্বস্তি ফিরেছে ভারতীয় দলের অন্দরেও।

সদ্য কোচবিহার ট্রফিতে তিনটি শতরান ও তিনটি অর্ধশতরানের ইনিংস রয়েছে অভিষেকের। চন্দননগরের ন্যাশনাল স্পোর্টিং ক্লাব থেকে উঠে আসা অভিষেক রঞ্জি দলের শিবিরেই পেলেন এই সুখবর। ছোটবেলার কোচ বিভাস দাসের প্রশিক্ষণে নিজেকে ক্রিকেটার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে সে। আর স্বভাবতই এই খবরে খুশি অ্যাডাম গিলক্রিস্টের ভক্ত অভিষেক।