লেজার আলো নেভানোর পর, দর্শক প্রবেশ বন্ধ হল ‘বুর্জ খালিফা’য়

লেজার আলো নেভানোর পর, দর্শক প্রবেশ বন্ধ হল ‘বুর্জ খালিফা’য়

আরোহী নিউজ ডেস্ক: বিমান চালাতে সমস্যা হচ্ছে বলে অভিযোগ করছিলেন পাইলটরা। এই পরিস্থিতিতে কলকাতার ‘বুর্জ খালিফা’-য় লেজার আলোর শো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এ বার প্রবল ভিড়ের চাপে শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের এই পুজোয় দর্শকদের প্রবেশ বন্ধ করে দিল পুলিশ।

বুধবার রাতে ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে মন্ত্রী সুজিত বসুর শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের পুজোয় প্রবেশ বন্ধ করে পুলিশ। দর্শকদের সরিয়ে ফাঁকা করে দেওয়া হয় মণ্ডপ।

এ বারে বুর্জ খলিফার আদলে প্যান্ডল ও আলোকসজ্জা তৈরি করে কার্যত চমক দিয়েছিল শ্রীভূমি স্পোর্টিং। কার্যত মহালয়া থেকে কলকাতা থেকে শহরতলি সবারই গন্তব্য হয়ে উঠেছিল এই প্যান্ডেল। পুলিশ সূত্রে খবর, করোনা বিধিনিষেধের তোয়াক্কা না করে মণ্ডপ ঘিরে প্রবল ভিড় জমার কারণেই সাময়িক ভাবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ঘটনায় প্রকাশ, ঘড়ির কাঁটায় মাঝরাতের কিছুটা পরে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দেওয়া হয় সাময়িক ভাবে শ্রীভূমি স্পোর্টিংয়ে দর্শকদের প্রবেশ নিষেধ। বিধাননগর পুলিশের পদস্থ কর্তাদের উপস্থিতিতে যে দুঃসংবাদ ঘোষণা করেন রাজ্যের দমকলমন্ত্রী তথা শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের পুজোর অন্যতম উদ্যোক্তা সুজিত বসু।

অষ্টমীতে বৃষ্টির পূর্বাভাস থাকলেও উপচে পড়া ভিড় দেখা দেয় শ্রীভূমিতে। ভিড় নিয়ন্ত্রণে পুজো উদ্যোক্তাদের কাছে কোভিডবিধি মেনে চলার বার্তা যায়। শ্রীভূমি পরিদর্শনে যান পুলিশকর্তারা। পুলিশি টহলদারি বাড়ানো হয়। তার পরই প্রবেশ নিষেধের বিষয়টি ঘোষণা করা হয়।

উল্লেখ্য, এ বারের পুজোর অন্যতম সেরা আকর্ষণ এই ‘বুর্জ খালিফা।’ দেবীপক্ষের শুরু থেকেই এই মণ্ডপে ভিড় হচ্ছে ব্যাপক। অনেক ক্ষেত্রেই এই ‘বুর্জ খালিফা’র ভিড়কেই কলকাতার সামগ্রিক ছবি হিসেবেও প্রচার করা হচ্ছে।