ক্যাপসিকামে রয়েছে একাধিক গুনাগুন, জেনে নিন কোন রং বেশি উপকারী?

ক্যাপসিকামে রয়েছে একাধিক গুনাগুন, জেনে নিন কোন রং বেশি উপকারী?

আরোহী নিউজ ডেস্ক: ক্যাপসিকাম, এটি শুধু রান্নার স্বাদ বাড়ায় এমনটা নয় এতে রয়েছে একাধিক উপকারিতা যা আমাদের শরীরের জন্যে ভীষন উপকারী। ক্যাপসিকামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। ভিটামিন সি দেহে আয়রন শোষণে সহায়তা করে। ভিটামিন এ, সি এবং বিটা ক্যারোটিন সমৃদ্ধ হওয়ায় দৃষ্টিশক্তি সংক্রান্ত নানা সমস্যা দূর করে এবং দৃষ্টিশক্তি উন্নত করতে সাহায্য করে। এছাড়া লাইকোপেন সমৃদ্ধ হওয়ায় উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং হৃদরোগ দূর করে। এছাড়া হজম সংক্রান্ত নানা সমস্যা যেমন-ডিসপেপসিয়া দূর করতে সহায়তা করে এই ক্যাপসিকাম। তবে ক্যাপসিকাম শুধু সবুজ হয় না, লাল এবং হলুদ ও হয়। চলুন জেনে নেওয়া যাক তিন ধরনের ক্যাপসিকামের উপকারিতা।

সবুজ ক্যাপসিকাম: 

সবুজ ক্যাপসিকাম অল্প বয়সীদের জন্য উপকারী। এতে ক্যাপসাইসিনস নামক এক ধরনের উপাদান থাকে, যা ডিএনএর সঙ্গে যুক্ত হয়ে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদানের সংযুক্ত হওয়াতে বাধা দেয়। এটি ক্যান্সার প্রতিরোধে কাজ করে। এ ছাড়া এই ক্যাপসিকাম মাইগ্রেন, সাইনাস, সংক্রমণ, দাঁতে ব্যথা, অস্টিওআর্থ্রাইটিস ইত্যাদি ব্যথা দূর করে। 

লাল ক্যাপসিকাম:

লাল ক্যাপসিকামে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন 'সি' রয়েছে। এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের পরিমাণও বেশি থাকে। লাল ক্যাপসিকাম খেলে ত্বকের স্বাভাবিকতা বজায় থাকে, চুলের সৌন্দর্য বাড়ে, চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখে এবং এতে কোলেস্টেরল কম থাকায় এটি মোটা হওয়ার প্রবণতা কমায়।

হলুদ ক্যাপসিকাম: 

হলুদ ক্যাপসিকামে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এটি ফ্রি রেডিকেলের সঙ্গে লড়াই করে এবং সেল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া রোধ করে। এই ক্যাপসিকামে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ফাইবার শরীর থেকে টক্সিন বের করে। এ ছাড়া হজমশক্তি বাড়ায়, কোলেস্টেরল কমায় এবং উচ্চ রক্তচাপ কমায় ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ায়।