হাসপাতাল চত্বরে নামাজ পড়া  নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে 

হাসপাতাল চত্বরে নামাজ পড়া  নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে 

আরোহী নিউজ ডেস্ক:  হাসপাতাল চত্বরে নামাজ পড়ার ভিডিও নিয়ে শুরু হলো বিতর্ক। উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজ হাসপাতাল চত্বরে নামাজ পড়ছিলেন এক মহিলা ,তার সম্মতি ছাড়াই ভিডিও তুলে ভাইরাল করে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় পুলিশ জানিয়েছে, মহিলা কোনো অপরাধ করেননি তাই তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি। উত্তরপ্রদেশের আইন অনুসারে, মুসলিম ধর্মালম্বীরা শুধুমাত্র মসজিদের ভেতরেই নামাজ পড়তে পারবেন,প্রকাশ্যে নামাজ পড়তে পারবেন না। এই বিষয়ে সংবাদমাধ্যমের একাংশ জানিয়েছেন,প্রয়াগরাজের তেজ বাহাদুর সপ্রু চিকিৎসা কেন্দ্রে একজন আত্মীয় ভর্তি থাকার কারণে সেখানেই ছিলেন ওই মহিলা।এই বিষয়ে কিছু সংবাদমাধ্যমের দাবি, ওই মহিলার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ এবং সরকারের নিন্দা করেছেন এমআইএম নেতা আসাদুদ্দিন ওয়েইসি।এই ঘটনায় আসাদুদ্দিন বলেন, “ চিকিৎসার কারণে আত্মীয় হাসপাতালে ভর্তি থাকার কারণে যদি কারোর ভাবাবেগে আঘাত না করে কেউ এক কোণে বসে নামাজ পরে তাতে সমস্যা কোথায়?”উত্তরপ্রদেশের পুলিশের আর কোন কাজ নেই?নামাজ পড়লেই অভিযোগ দায়ের হচ্ছে!” এই বিষয়ে পুলিশ জানায়, যেহেতু ওই মহিলা কোনো দোষ করেননি তাই কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।তদন্ত করে দেখা গেছে ওই মহিলার কোনো অসৎ উদ্যেশ্য ছিল না, শুধু মাত্র হাসপাতালের ভর্তি আত্বিয়ের আরোগ্য কামনার জন্যই তিনি প্রার্থনা করছিলেন। ওই চিকিৎসালয়ের সুপার এম কে চৌধুরী এই বিষয়ে দাবি করেছেন, “হাসপাতালের তরফ থেকে এই ধরণের কাজকর্মে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। এইরকম প্রকাশ্য স্থানে,এই ধরণের কাজকর্ম চলতে পারে না।