৫০ বছর পর চিরতরে নিভল অমর জওয়ান জ্যোতি

৫০ বছর পর চিরতরে নিভল অমর জওয়ান জ্যোতি

আরোহী নিউজ ডেস্ক: ৫০ বছর পর চিরতরে নিভল অমর জওয়ান জ্যোতির আগুন। ইন্ডিয়া গেট থেকে ওয়ার মেমোরিয়ালে স্থানান্তরিত করা হল জ্যোতি। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে শহিদ ভারতীয় জওয়ানদের শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদনে দিল্লিতে ১৯২১ সালে ইন্ডিয়া গেট তৈরি করেছিলেন এডুইন ল্যুটিয়েন্স। পঞ্চাশ বছর পর ১৯৭১ সাল। ওই ইন্ডিয়া গেটেই বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধে শহিদ জওয়ানদের স্মৃতিতে তৈরি করা হয়েছিল অমর জওয়ান জ্যোতি। সূচনা করেছিলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। আর এর পঞ্চাশ বছর পরে ইন্ডিয়া গেটের জ্যোতির আগুন চারশো মিটার দূরে সরে পৌঁছল দিল্লির ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে।

একাত্তরে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধে শহিদ ভারতীয় জওয়ানদের স্মৃতিচারণায় তৈরি হয় অমর জওয়ান জ্যোতি। ১৯৭২-র প্রজাতন্ত্র দিবসে অমর জওয়ান জ্যোতির সূচনা করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে শহিদ জওয়ানদের শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদনে ১৯৭১ সালে দিল্লির ইন্ডিয়া গেটে অমর জওয়ান জ্যোতি তৈরি করা হয়েছিল। পরের বছর শহিদ শ্রদ্ধার্ঘ্যের জন্য অমর জওয়ান জ্যোতির সূচনা করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। ১৯৭২ সালের ছাব্বিশে জানুয়ারি শহিদ স্মৃতি স্মারকের সূচনা করেন তিনি। শহিদ শ্রদ্ধার্ঘ্যে এলওয়ানএওয়ান ক্যাটেগরির সেলফ লোডিং রাইফেল উল্টোভাবে রাখা। আর জওয়ানদের স্মরণ করে ওই রাইফেলের মাথায় সেনা টুপি। আর বলিদান স্মরণ করে শহ্দি স্তম্ভের সামনে দিবারাত্র জ্বলত জ্যোতি। সব মিলিয়ে অমর জওয়ান জ্যোতি।

শুক্রবার সকালে হঠাৎই জানা যায় চিরতরে নিভছে ইন্ডিয়া গেটের অমর জওয়ান জ্যোতি। পরিবর্তে জ্যোতিশিখা নিয়ে যাওয়া হবে ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে। ওয়ার মেমোরিয়ালের অগ্নিশিখার সঙ্গে মিলিয়ে দেওয়া হবে জ্যোতিশিখাকে। সেই মতো এদিন বিকেলে এয়ার মার্শাল বলভদ্র রাধা কৃষ্ণের উপস্থিতিতে প্রোটোকল মেনে ইন্ডিয়া গেটে শুরু হয় জ্যোতি স্থানান্তকরণের প্রক্রিয়া।

প্রথা মেনে প্রথমে শহিদ বেদীতে মাল্যদান করে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করা হয়। তারপরে চার অগ্নিকুণ্ড থেকে আগুন সংগ্রহ করে ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালের দিকে যাত্রা বাহিনীর। দিল্লির রাজপথ ধরে কুচকাওয়াজ করে ধীরে ধীরে ওয়ার মেমোরিয়াল। আর সেখানে পৌঁছনোর পরে সেনাপ্রথা মেনে প্রথমে বিউগল বাদ্য। সেখানে ফের আর এক দফা শহিদ জওয়ানদের শ্রদ্ধা জানান এয়ার মার্শাল। পরে ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালের অগ্নিকুণ্ডে ইন্ডিয়া গেটের জ্যোতির আগুন মিলিয়ে স্থানান্তরের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করেন এয়ার মার্শাল বলভদ্র রাধাকৃষ্ণ।