বাঁকুড়ায় প্রবল বৃষ্টিতে ভাসছে সেতু, জলের তলায় কজওয়ে

বাঁকুড়ায় প্রবল বৃষ্টিতে ভাসছে সেতু, জলের তলায় কজওয়ে

আরোহী নিউজ ডেস্ক: নিম্নচাপের জেরে টানা বৃষ্টিতে ভাসছে বাঁকুড়ার ভাদুল সেতু। ফলে যাতায়াত বন্ধ একাধিক গ্রামে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, সেতুর অবস্থা বেহাল হওয়ায় বারবার তৈরি করা হলেও তা অল্প বৃষ্টির জলের তোড়ে ভেসে যাচ্ছে। এর ফলে ভুগতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। বেশ কয়েকটি গ্রামের মানুষজনকে অনেকটা ঘুরপথে যাতায়াত করতে হচ্ছে। ভাদুল সেতু বাঁকুড়া শহরের সঙ্গে যুক্ত করেছে নদের অপর পাড়ে থাকা সুরপানগর,  বীরবাঁধ, মালাতোড়,  বালিয়াড়া,  সানতোড়,  নতুনগ্রাম সহ বিভিন্ন গ্রামকে। দৈনন্দিন কাজে মানুষকে এই সেতু পারাপার করতে হয়। কিন্তু নিম্নচাপের জেরে সেতু জলের তলায় চলে যাওয়ায় এখন বাধ্য হয়ে প্রায় দশ কিলোমিটার ঘুরে মানুষকে বাঁকুড়া শহরে যাতায়াত করতে হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, সেতুর অবস্থা প্রচন্ড খারাপ। বারবার তৈরি করা হলেও তা অল্প বৃষ্টির জলের তোড়ে ভেসে যায়। নষ্ট হচ্ছে সরকারি টাকা। রেললাইন পারাপারের সময় দুর্ঘটনার ভয়ে অগত্যা ঘুরপথে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করতে হচ্ছে গ্রামবাসীদের। 

এদিকে আবারও অল্প বৃষ্টিপাতের ফলে জলের তলায় সিমলাপালের ভেলাইডিহা-পাথরডাঙার শিলাবতি কজওয়ে।এমন পরিস্থিতিতে বার বার সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে ৪০-৫০ টি গ্ৰামের মানুষদের। গত কয়েকদিনের নিম্নচাপের সময় বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটেছিল এই শিলাবতী কজওয়ের উপর। আবারও অল্প বৃষ্টিপাতের জল বইছে কজওয়ের উপর দিয়ে।
স্থানীয়দের অভিযোগ, বারবার অল্প বৃষ্টিপাতের ফলে এই কজওয়ের উপর জল উঠে আসায় সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে স্থানীয়দের। চিকিৎসা ব্যবস্থা থেকে শুরু করে বিভিন্ন জরুরী পরিষেবা জন্য এই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের যাতায়াত করতে হয় এই কজওয়ের উপর দিয়ে। গতবারই যে নিম্নচাপ হয়েছিল তার ফলে কজওয়ের উপর জল উঠে যায় এবং সেই মুহূর্তে ব্রিজ পারাপারের সময় জলের তলায় তলিয়ে যায় স্থানীয় একটি গ্রামের বাসিন্দা। অভিযোগ, প্রবল বৃষ্টিতে মাঝেমধ্যে দুর্ঘটনা লেগেই থাকে ভালাইডিহা-পাথরডাঙা শিলাবতি কজওয়ে উপর।

কিন্তু এবারে দুর্ঘটনা এড়াতে তৎপর প্রশাসনের আধিকারিকরা। সিমলাপাল পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাঁশের বেরিকেড করা হয়েছে কজওয়ের দুই প্রান্তে।রাখা হয়েছে সিভিক ভলেন্টিয়ার্স। প্রতিনিয়ত চলছে নজরদারি।