বন্যা বিধ্বস্ত কেরলে লকগেট খোলার সিদ্ধান্ত

বন্যা বিধ্বস্ত কেরলে লকগেট খোলার সিদ্ধান্ত

আরোহী নিউজ ডেস্ক: ভয়ঙ্কর বৃষ্টিতে বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে কেরলের বিভিন্ন নদী। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি বাঁধের জল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেরল প্রশাসন। যেকটি বাধের লকগেট খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তাদের মধ্যে ইদ্দুকি হল এশিয়ার বৃহত্তম বাঁধ। যা রয়েছে পেরিয়ার নদীর উপর। অন্যটি ইদামালায়ার বাঁধ। এই বাঁধটিও পেরিয়ারেরই একটি উপনদীর উপর রয়েছে।

কেরলের জলমন্ত্রী রসি অগাস্টিন জানিয়েছেন, ইদ্দুকি বাঁধের জলস্তর যে কোনও মুহূর্তে বিপদসীমা পেরিয়ে যাবে। বাঁধের জলস্তর সোমবার সকাল ৭টায় ছিল বিপদসীমার মাত্র দু’ফুট নীচে। মঙ্গলবার সেই সীমা পেরিয়ে যায়। প্রশাসনের মতে, বাড়তে থাকা জলস্তর বড় বিপদ ডেকে আনতে পারে। তাই ইদ্দুকির দু’টি গেট ৫০ সেন্টিমিটার করে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর ফলে প্রতি সেকেন্ডে ১০০ কিউবিক মিটার করে জল বেরিয়ে যাবে। এর্নাকুলামের জেলাশাসক জানিয়েছেন, ইদামালায়ার বাঁধটিরও দু’টি শাটার ৮০ সেন্টিমিটার করে খুলে দেওয়া হবে।

কেরল প্রশাসনের এই সিদ্ধান্তে উদ্বেগ বেড়েছে রাজ্যে। বিশেষজ্ঞদের একটি অংশের মতে, রাজ্যের অধিকাংশ জেলা যেখানে প্লাবিত সেখানে বাঁধের জল ছাড়লে বিপদ আরও বাড়তে পারে। তবে কেরল সরকার জানিয়েছে মানুষের কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত। প্রশাসনের সতর্কবার্তা মেনে চললে সাধারণ মানুষও ক্ষয়ক্ষতি এড়িয়ে চলতে পারবেন বলেও দাবি করা হয়েছে।