তৃতীয় ঢেউয়ে দেশে দৈনিক সংক্রমণ হতে পারে ৫ লক্ষ, বলছে গবেষণা

তৃতীয় ঢেউয়ে দেশে দৈনিক সংক্রমণ হতে পারে ৫ লক্ষ, বলছে গবেষণা

আরোহী নিউজ ডেস্ক: আগামী ৬-৮ সপ্তাহের মধ্যেই দেশে আছড়ে পড়তে পারে করোনার তৃতীয় ঢেউ, সম্প্রতি এমনটাই জানিয়েছিলেন এইমস প্রধান। এবার আইআইটি কানপুরের গবেষণায় উঠে এল আরও এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। গবেষকরা দাবি করছেন, দেশে করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়লে দৈনিক সংক্রমণ ছুঁতে পারে ৫ লক্ষ।

বেশ কয়েকটি বিষয় মাথায় রেখেই 'সাসেপটিবল-ইনফেকটেড-রিকভার্ড' অর্থাৎ 'এসআইআর' মডেলে গবেষণাটি করা হয়েছে। সংক্রমণ রুখতে টিকাকরণের ভূমিকাকে গবেষণার তথ্য থেকে বাদ রাখা হয়েছে। দেশের সমস্ত মানুষের সংক্রমিত হওয়ার মাত্রা একই রকম ধরেই চালান হয়েছে গবেষণা। অন্যদিকে ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে গোটা দেশের সর্বত্র লকডাউন উঠে যাবে বলেই ধরে নেওয়া হয়েছে। এই বিষয়গুলিকে মাথায় রেখে গবেষণায় তিনটি আশঙ্কার কথা জানানো হয়েছে।

গবেষণায় জানান হয়েছে অক্টোবরে তৃতীয় তরঙ্গের সর্বোচ্চ অবস্থান থাকবে। এই সময় প্রভাব পড়বে সবচেয়ে বেশি। দ্বিতীয় তরঙ্গের তুলনায় ভয়াবহতা খানিকটা কম হলেও ভারতে দৈনিক সংক্রমণ ৩.২ লক্ষ পর্যন্ত হতে পারে।

করোনার নতুন প্রজাতি খুব দ্রুত মানুষের মধ্যে সংক্রমণ ছড়াবে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। সেপ্টেম্বরের শেষেই পরিস্থিতি মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। দেশে দৈনিক সংক্রমণ হতে পারে ৫ লক্ষে।

পাশাপাশি জানান হয়েছে, অক্টোবরের শেষে আছড়ে পড়তে পারে তৃতীয় তরঙ্গ। সর্বাধিক ২ লক্ষের ঘরে থাকবে দৈনিক সংক্রমণ। ভয়াবহতা দ্বিতীয় তরঙ্গের তুলনায় কম।

আইআইটি কানপুরের দুজন বিশিষ্ট অধ্যাপক রাজেশ রঞ্জন এবং মহেন্দ্র ভর্মার তত্ত্বাবধানে এই গবেষণাটি করা হয়েছে। যদিও টিকাকরণের উপর সংক্রমণের হার নির্ভর করছে বলেই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। দ্রুত টিকাকরণ সম্পন্ন হলে তৃতীয় তরঙ্গ নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হবে। কিন্তু টিকাকরণের হার কতটা হলে তৃতীয় তরঙ্গে সংক্রমণ কেমন জায়গায় থাকবে, সেসব নিয়ে গবেষণা চালানো হচ্ছে বলেই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।