চিনকে কড়া হুঁশিয়ারি ভারতের

চিনকে কড়া হুঁশিয়ারি ভারতের

আরোহী নিউজ ডেস্ক :  বেশ কিছুদিন ধরেই ভারতের বায়ুসেনার নজর অরুনাচলের লাইন অফ অ্যাক্টচুয়াল কন্ট্রোলে। এবার সেই বর্ডারে নজরদারী চালাচ্ছে ইজরায়েলের তৈরি হেরন ড্রোন। ভারতীয় সেনার মেজর কার্তিক গর্গ জানিয়েছেন, ইজরায়েলের তৈরি হেরন ড্রোন যা সবথেকে শক্তিশালি যুদ্ধ বিমানে ব্যবহার করা হবে। নতুন এই হানাদার যন্ত্র নাগাড়ে ৪৫ ঘন্টা ৩৫ হাজার ফিট উচ্চতা থেকে চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মির ওপর নজর রাখতে পারে।

চিনের তরফেও চালকবিহীন এরিয়াল ভেইক্যাল এবং ফাইটার জেট রাখা হয়েছে লাদাখের প্যাংগঙ লেক থেকে মাত্র ২০০ কিলোমিটার দূরে। যেমন টা স্যাটেলাইট ইমেজে দেখা যাচ্ছে। এছাড়াও চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মি কৌসলগতভাবে সৈন্য মোতয়েন করেছে লাইন অফ অ্যাক্টচুয়াল কন্ট্রোলে।যেখানে স্যাটেলাইটের মধ্যমে এশিয়ার দুটি বৃহত্তম দেশকে একে অপরের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে দেখা যাচ্ছে। গত সেপ্টেম্বর মাসেই ইজরায়েল থেকে এই নয়া নজরদারীযন্ত্র কিনেছে ভারত সরকার। চিতা প্রজেক্টের আন্ডারে ভারতীয় সেনাদের মিসাইলের আধুনিকিকরনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে হেরন।

তবে ইজরায়েলের তৈরি হেরন ড্রোন ভারতে নতুন নয়। হেরন-১ গোত্রের ড্রোন ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে অনেক দিন ধরেই রয়েছে। কিন্তু এই ড্রোনের আরও আধুনিক এবং উন্নত সংস্করণ তৈরি করেছে ইজরায়েল। নতুন সংস্করণের নাম হেরন টিপি এবং হেরন টিপি এক্সপি। প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানিয়েছে, ভারতীয় স্থলসেনা, বায়ুসেনা এবং নৌসেনার জন্য মাঝারি উচ্চতার ওড়ার উপযোগী হেরন টিপি। আধুনিক উপগ্রহ-যোগাযোগ এবং সেন্সর যুক্ত এই চালকহীন বিমানে আকাশ থেকে মাটিতে ছোড়ার উপযোগী ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করা যাবে। বসানো যাবে লেজার-নিয়ন্ত্রিত নিশানা করার সরঞ্জামও। এই ড্রোনের সাহায্যে বিনা ঝুঁকিতে জঙ্গি শিবিরে অভিযান চালাতে পারবে ভারত।