ত্রিপুরায় দুয়ারে গুন্ডা মডেল: অভিষেক

ত্রিপুরায় দুয়ারে গুন্ডা মডেল: অভিষেক

আরোহী নিউজ ডেস্ক: পুরভোটের আগেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ত্রিপুরা। আগরতলায় তৃণমূলের যুব সভাপতি সায়নী ঘোষের গ্রেপ্তারির পর থেকেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। এর মধ্যেই সোমবার ত্রিপুরায় পৌঁছান তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিনের সাংবাদিক বৈঠক থেকে ফের বিপ্লব দেব সরকারকে আক্রমণ করেন অভিষেক। তাঁর কথায়, ত্রিপুরায় পুরভোটের দিন সন্ত্রাস করতে পারে বিজেপি।

সোমবার সন্ত্রাসী এড়িয়ে কিভাবে ত্রিপুরাবাসী ভোট দেবেন, সেই কথাও জানান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন, 'হাতে পদ্মফুল, মোদির ছবি নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। ভোটকেন্দ্রে গিয়ে তৃণমূলের বোতাম টিপে দিন। মুখে বিজেপি জিন্দাবাদ বলে তৃণমূলকে ভোট দিন।' বিপ্লব দেবের ইন্ধনে ত্রিপুরায় দুয়ারে গুন্ডার মডেল তৈরি হয়েছে বলেও দাবি করেন অভিষেক। সায়নী ঘোষকে গ্রেফতারি প্রসঙ্গে এদিন ত্রিপুরার পুলিশ, প্রশাসনকেও কটাক্ষ করেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। তাঁর কথায়, 'থানায় গিয়ে হামলা করছে বিজেপি। হাসপাতালের দুয়ারে গুণ্ডা পাঠিয়েছে। পুলিশ টেবিলের তলায় লুকোচ্ছে। তাঁদের দলদাস বানিয়ে দিয়েছে বিজেপি।' অভিষেক আরও বলেন, 'বিজেপির পায়ের তলার মাটি সরে গিয়েছে। ত্রিপুরায় যা যা ঘটেছে তার সব ছবি-ভিডিও রয়েছে। সুপ্রিম কোর্টে জমা দিয়েছি। আশা করি সুবিচার হবে। গণতন্ত্রকে ধর্ষণ করছে।'

তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের অভিযোগ, 'ত্রিপুরায় দিনের আলোয় বেরনো মুশকিল। নিজের মত প্রকাশ করা যায় না এখানে। এই পরিস্থিতি বদলাতে হবে। রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা তলানিতে ঠেকেছে। আর এই পরিবর্তন করতেই আমরা এখানে এসেছি। জিতে তারপরই রাজ্য ছাড়ব।' সায়নী ঘোষের গ্রেফতারি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, 'খেলা হবে স্লোগান দেওয়ায় সায়নীকে গ্রেপ্তার করা হলে প্রধানমন্ত্রী, বিজেপির অন্য নেতাদের কেন গ্রেপ্তার করা হল না? বাংলায় এসে তো প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং অন্যান্য মন্ত্রীরাও ‘খেলা হবে’ বলেছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা  নেওয়া হয়নি কেন?'