জলে ডুবে মৃত্যু অঙ্কিতার,দেহে রয়েছে আঘাতেরও চিহ্ন,দাবি ময়নাতদন্তের রিপোর্টে 

গত ১৮ সেপ্টেম্বর ৩টে নাগাদ শেষ বার রিসর্টে  দেখা গিয়েছিল ওই তরুণীকে আর তারপরেই নিখোঁজ হয়ে যান

জলে ডুবে মৃত্যু অঙ্কিতার,দেহে রয়েছে আঘাতেরও চিহ্ন,দাবি ময়নাতদন্তের রিপোর্টে 

আরোহী নিউজ ডেস্ক: রিসেপশনিস্ট অঙ্কিতার খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই উত্তরাখণ্ডে উত্তাল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।এর মধ্যেই পেশ করা হয়েছে ময়না তদন্তের রিপোর্ট। সেই রিপোর্ট অনুযায়ী জলে ডুবে মৃত্যু হয়েছে ওই তরুণীর তবে মৃত্যুর আগে তাকে আঘাত করা হয়েছিল সেই চিহ্নও রয়েছে তাঁর শরীরে।শনিবার হৃষীকেশের  এমসে ময়নাতদন্ত করা হয় অঙ্কিতার এবং তারপরে দেহ তুলে দেওয়া হয়।১৯ বছর বয়সী এই তরুণী উত্তরাখণ্ডের পাউরি জেলার যমকেশ্বর ব্লকের একটি রিসর্টে কাজ করতেন রিসেপশনিস্ট হিসেবে। গত ১৮ সেপ্টেম্বর ৩টে নাগাদ শেষ বার রিসর্টে  দেখা গিয়েছিল ওই তরুণীকে আর তারপরেই নিখোঁজ হয়ে যান।

গত শনিবার সকালে চিল্লা খাল থেকে উদ্ধার হয় অঙ্কিতার দেহ। পুলিশের অনুমান খুন করার পরেই অভিযুক্তরা তরুণীর দেহ বলে দেয় ওই খালে।তরুণীকে খুনের অভিযোগ উঠেছে হরিদ্বারের  বিজেপি নেতা বিনোদ আরিয়ার ছেলে পুলকিত আরিয়া সহ আরও তিনজনের বিরুদ্ধে।অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয় পুলকিত আরিয়া , রিসর্টের ম্যানেজার সৌরভ ভাস্কর এবং সহকারি  ম্যানেজার অঙ্কিত গুপ্তকে, ১৪ দিনের জেল হেফাজতে রাখা হয়েছে তাদের।

তরুণীকে খুনের ঘটনায় বিশেষ তদন্তকারী দল গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর সিং ধামি। ঘটনাকে কেন্দ্র করে অঙ্কিতার এক বন্ধু জানান,রিসর্টে আসা অতিথিদের সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হতে রাজি না হওয়ার কারণেই খুন করা হয়েছে অঙ্কিতাকে ,ডিজিপি অশোক কুমারও দাবি করেছেন এমনটাই। অশোক কুমার জানিয়েছেন , অতিথিদের খুশি করার জন্য রিসর্টের মালিক চাপ দিতেন অঙ্কিতাকে। পুলকিতের গ্রেফতারির পরেই বুলডোজার দিয়ে ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় পুলকিত আরিয়ার রিসর্টটি।