" রিপোর্ট সামনে আসলে রাঘববোয়ালরা ধরা পড়বে "- বাগ রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে তোপ দাগলেন দিলীপ ঘোষ

" রিপোর্ট সামনে আসলে রাঘববোয়ালরা ধরা পড়বে "- বাগ রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে তোপ দাগলেন দিলীপ ঘোষ

আরোহী নিউজ ডেস্ক: এসএসসি গ্রুপ সি নিয়োগ মামলায় বাগ রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে এবার তোপ দাগলেন বিজেপির সর্ব ভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন তিনি বলেন, 'সিবিআই, ইডি ডাকলে আদালতে চলে যান, হাসপাতালে ভর্তি হয়ে যান।'' 'যতগুলো এনকোয়ারি কমিটি তৈরি হয়েছে, সেগুলোর রিপোর্ট সামনে আসলে এই ধরনের আরও অনেক রাঘব বোয়াল ধরা পড়বে।'' এসএসসি -র গ্রুপ সি নিয়োগ-দুর্নীতি মামলায় অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি রঞ্জিতকুমার বাগের নেতৃত্বাধীন অনুসন্ধান কমিটির রিপোর্ট প্রসঙ্গে মন্তব্য দিলীপ ঘোষের।

অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি বাগের রিপোর্টে এসএসসি ও মধ্য শিক্ষা পর্ষদের একাধিক প্রাক্তন ও বর্তমান কর্তার নাম আছে। বেআইনি সুপারিশপত্র দেওয়ার ক্ষেত্রে নাম জড়িয়েছে এসএসসির প্রাক্তন চেয়ারম্যান সৌমিত্র সরকার এবং এসএসসি'র প্রাক্তন উপদেষ্টা শান্তিপ্রসাদ সিন্হার নাম! অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির কমিটির রিপোর্টে বলা হয়েছে, শান্তিপ্রসাদ সিন্হা ভুয়ো সুপারিশপত্র দিতেন মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়কে। এছাড়াও নিয়ম বহির্ভূতভাবে কাজের জন্য সার্ভিস কমিশনের প্রাক্তন চেয়ারম্যান সুবীরেশ ভট্টাচার্য, অতীতে একই দায়িত্বে থাকা ও স্কুল সার্ভিস কমিশনের সাউদার্ন রিজিয়নের বর্তমান চেয়ারপার্সন শর্মিলা মিত্র, এসএসসির ইস্টার্ন রিজিয়নের প্রাক্তন চেয়ারপার্সন মহুয়া বিশ্বাস, সাউথ-ইস্টার্ন রিজিয়নের প্রাক্তন চেয়ারপার্সন চৈতালি ভট্টাচার্য, এসএসসির সাউথ-ইস্টার্ন রিজিয়নের প্রাক্তন চেয়ারম্যান শুভজিত্‍ চট্টোপাধ্যায়এবং নদার্ন ও ইস্টার্ন রিজিয়নের চেয়ারম্যান শেখ সিরাজুদ্দিনের বিরুদ্ধে, শৃঙ্খলাভঙ্গের জন্য বিভাগীয় তদন্তের সুপারিশ করা হয়েছে বাগ কমিটির রিপোর্টে। ১৮ মে এই মামলায় রায় ঘোষণা করবে কলকাতা হাইকোর্ট।