বিশ্ব যোগ দিবসে জেনে নিন যোগব্যায়ামের কি কি উপকারিতা  

বিশ্ব যোগ দিবসে জেনে নিন যোগব্যায়ামের কি কি উপকারিতা  

আরোহী নিউজ ডেস্ক : আজ বিশ্ব যোগ দিবস। যোগব্যায়ামের নাম শুনলেই অনেকেই ১০ মাইল দূরে পালিয়ে যান। কারণ,অনেকের কাছে যোগব্যায়াম মানেই শুধুমাত্র কঠিন কঠিন কোনও অঙ্গভঙ্গী বা প্রাণায়াম। তবে এই ধারণা কিন্তু একেবারেই ভুল। এর সঙ্গে রয়েছে স্বাস্থ্যের অনেক যোগসূত্র । বিশেষজ্ঞরা প্রায়শই সুস্থ থাকার জন্য নিয়মিত যোগাভ্যাসের পরামর্শ দেন। জানেন কি, রোজ যোগাভ্যাস করলে শরীরে কী কী প্রভাব পড়ে? কীভাবেই স্বাস্থ্য ভাল করে যোগাসন? চলুন জেনে নেওয়া যাক, কেন রোজ প্রতিটা মানুষের যোগাভ্যাস করা প্রয়োজন।

বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, নিয়মিত যোগাভ্যাস করলে শরীরের ফ্লেক্সিবিলিটি বৃদ্ধি পায়। চলাফেরায় কোনও সমস্যা থাকে না। আপনার ব্যস্ততম দিনে কাজের চাপ হোক বা ব্যক্তিগত জীবনের চাপ, এটি বাড়লে দেখা দিতে পারে স্ট্রেসের সমস্যা । তাই স্ট্রেসমুক্ত জীবন পেতে যোগাভ্যাসের জুড়ি মেলা ভার। নিয়মিত যোগাসন অভ্যাস করলে মন শান্ত থাকে। স্ট্রেস দূরে থাকে।

 মানসিক স্বাস্থ্য বিঘ্নিত হওয়ার আরও একটি কারণ হল উদ্বেগ। বহু মানুষের ক্ষেত্রেই উদ্বেগ একটি জটিল সমস্যা। তাই যাদের উদ্বেগজনিত সমস্যা রয়েছে,নিয়মিত যোগাভ্যাস তাঁদের জন্য অত্যন্ত উপকারী । বিশেষজ্ঞদের দাবি, এতে উদ্বেগজনিত সমস্য়া ধারেকাছে ঘেঁষবে না। শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় যোগাভ্যাস। বহু মানুষের চলাফেরায় নানা সমস্যা থাকে। গাঁটের ব্যথার বা অন্য কোনও কারণেও হতে পারে। রোজ যোগাভ্যাস করলে এই ধরণের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এছাড়া, শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা দূর করে যোগাভ্যাস। এটি শরীরে রক্ত সঞ্চালন ও অক্সিজেনের প্রবাহ সঠিক রাখতে সাহায্য করে।

কেবলমাত্র বড়দের জন্যই নয়, ছোটদের জন্যও একইরকম উপকারী যোগাভ্যাস। বিশেষজ্ঞদের মতে,ছোটবেলা থেকে শিশুদের যদি নিয়মিত প্রাণায়াম ও যোগাসন করানো হয়,তবে শিশুদের শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্য ভাল থাকে। শিশুরা কম রোগে ভোগে, পড়াশোনাতে মনঃসংযোগ বাড়ে।