বিদায় কিংবদন্তী,  অঝোরে কান্না ফেডেরারের কেঁদে ফেললেন ‘শত্রু’ নাদালও

বিদায় কিংবদন্তী,  অঝোরে কান্না ফেডেরারের কেঁদে ফেললেন ‘শত্রু’ নাদালও

আরোহী নিউজ ডেস্ক: চোখে জল রজার ফেডেরারের। পিছনে দাঁড়িয়ে চোখের জল সামলানোর চেষ্টা করছেন পেশাদার টেনিস কেরিয়ারে ফেডেরারের সবথেকে বড় ‘শত্রু’ রাফায়েল নাদাল। ‘ফেডাল’-এর সেই বন্ধুত্ব, আবেগের বিস্ফোরণে কেঁদে ফেলল টেনিস দুনিয়াও। নেটিজেনদের মতে, বিশ্বের ক্রীড়া ইতিহাসের অন্যতম সেরা মন খারাপের এবং সেরা মুহূর্ত হয়ে থাকবে এই ফ্রেমটা।

খেলা চলাকালীনই ফেডেক্স ভক্তদের অনেকের চোখে জল দেখা যাচ্ছিল। আবেগ নিয়ন্ত্রণ করা যে বড় কঠিন কাজ। রজার নিজে অবশ্য নিজেকে ম্যাচের শেষ পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণে রেখেছিলেন। কিন্তু ম্যাচ শেষে আর পারলেন না। সঞ্চালকের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে অঝোরে কেঁদে ফেললেন। জড়িয়ে ধরলেন স্ত্রীকে। তারপর সন্তানদের। ধীরে ধীরে এগিয়ে এলেন নাদাল, জকোভিচরা। ফেডেক্স তবু কেঁদেই চলেছেন। রাজার বিদায়ে তাঁরাও যেন আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারছিলেন না। চোখ ভিজে আসছিল তাঁদের। শেষ পর্যন্ত ফেডেক্সকে কাঁধে বসিয়ে রাজার মতোই বিদায় দিলেন তাঁরা।

ফেডেক্সের বিদায়ের জন্য লেভার কাপের আয়োজকরা বেশ কিছু বন্দোবস্ত রেখেছিলেন। ফেডেরার এদিন নেমেছিলেন একসময়ের প্রধান প্রতিপক্ষ রাফায়েল নাদালকে সঙ্গী করে। গ্যালারিতে বসে নোভাক জকোভিচ, অ্যান্ডি মারেরা। প্রতিপক্ষ ছিল ফ্রান্সেস টিয়াফো এবং জ্যাক সফ জুটি। দীর্ঘদিন বাদে চোট সারিয়ে ফেরা নাদাল এবং ফেডেরার জুটি এদিন জিততে পারেনি। প্রথম সেটে ৬-৪ পয়েন্টে জিতেও ম্যাচ জেতা হয়নি। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষেও হারতে হয়েছে ৬-৪, ৬-৭, ৯-১১ ব্যাবধানে।