গোয়ায় কংগ্রেসকে ভোট দেওয়া মানে বিজেপিকে জেতানো: অভিষেক

গোয়ায় কংগ্রেসকে ভোট দেওয়া মানে বিজেপিকে জেতানো: অভিষেক

আরোহী নিউজ ডেস্ক: বিজেপি বিরোধী জোটকে একার হাতে শেষ করছে কংগ্রেস। বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার পানাজিতে গিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে তিনি দাবি করেন, গোয়ায় কংগ্রেসকে ভোট দেওয়া মানে বিজেপিকে জেতানো। 

এদিন গোয়ায় কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক পি চিদাম্বরম কে একহাত নেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁকে নিশানা করে অভিষেক বলেন, কংগ্রেস জানিয়েছিল তাদের জোটে আপত্তি নেই। কিন্তু , কংগ্রেস নিজেই বিজেপি কে হারাতে পারে। কংগ্রেসের এই ধরনের মন্তব্য একেবারেই দম্ভের পরিচয় বলে মন্তব্য করেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। একই সঙ্গে অভিষেকের কটাক্ষ, এই যে ১৭ জন বিধায়ক কংগ্রেসের তরফে জিতেছে তাদের মধ্যে ১৬ জনই দল ছেড়ে চলে গিয়েছে।

মোটামুটি এক মাসের বেশি সময় ধরে গোয়ায় কংগ্রেসের সঙ্গে জোট নিয়ে চাপানউতোর চলছিল। এদিন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক দাবি করেন, বিজেপির বিরুদ্ধে সবথেকে বড় মুখ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে কংগ্রেস কিভাবে জোটের কথা অগ্রাহ্য করতে পারে?

এদিন সাংবাদিক সম্মেলনের আগাগোড়াই কংগ্রেস কে নিশানা করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সরাসরি পি চিদাম্বরম কে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে অভিষেক বলেন, "প্রয়োজনে আপনি আমাদের বিরুদ্ধে মামলা করুন।" এদিকে দুদিন আগেই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী অভিযোগ করেন, "গোয়ায় টাকার ঝুলি নিয়ে বিধায়ক কিনতে গিয়েছেন মমতা"।

১৪ ফেব্রুয়ারি গোয়ায় বিধানসভা নির্বাচন। বিজেপির বিরুদ্ধে লড়তে এই প্রথমবার কংগ্রেস চাইলে একসঙ্গে লড়াই করা যেতে পারে বলেও বারবার দাবি করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। যদিও উলটো দিকে কংগ্রেসের দাবি, তৃণমূল কোনও ‘সরকারিভাব’ জোট প্রস্তাব দেয়নি। দলের তরফে কোনও চিঠি আসেনি। গোয়ার ভারপ্রাপ্ত নেতা পি চিদাম্বরম বারবার দাবি করছেন, তৃণমূলের তরফে চিঠি দিয়ে কোনও প্রস্তাব দেওয়া হয়নি। এই পরিস্থিতিতে গোয়ায় বিজেপি বিরোধী জোট তৈরি নিয়ে তুঙ্গে বাকযুদ্ধ।