পরিষেবার পাশাপাশি আরও এক চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট! এবার আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ পাভলভের বিরুদ্ধে  

পরিষেবার পাশাপাশি আরও এক চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট! এবার আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ পাভলভের বিরুদ্ধে  

আরোহী নিউজ ডেস্ক: এর আগে রোগীদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছিল।  রাজ্যের প্রথম সারির সরকারি মানসিক হাসপাতালে পরিষেবা নিয়ে অভিযোগের অন্ত ছিল না। এবার পাভলভ নিয়ে স্বাস্থ্য দফতর চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট দিল।পরিষেবার পাশাপাশি এবার জুড়ে গেল আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগও উঠলো পাভলভ মানসিক হাসপাতালের বিরুদ্ধে ! যদিও পাভলভের সুপার এই নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ। 

উৎকর্ষ কেন্দ্রের নাম বারবার পাভলভের বেহাল দশাই প্রকাশ্যে চলে আসছে। স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্টে ফের কাঠগড়ায় মানসিক হাসপাতাল। রাজ্যের প্রথম সারির এই মানসিক হাসপাতালে অতি নিম্নমানের রোগী পরিষেবা নিয়ে ইতিমধ্যেই রিপোর্ট দিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর। তা নিয়ে শোকজ করা হয়েছে পাভলভের সুপারকে।  

এবার স্বাস্থ্য দফতরের রিপোর্টে আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে পাভলভের বিরুদ্ধে। গত এপ্রিল ও মে মাসে দু’ দফায় পাভলভ হাসপাতাল পরিদর্শন করেন স্বাস্থ্য দফতরের কর্তারা। সপ্তাহখানেক আগে তাঁদের পর্যবেক্ষণে তৈরি যে রিপোর্ট জমা পড়েছে, তাতে বলা হয়েছে, পাভলভে রোগীদের খাবারের গুণগত মান অত্যন্ত খারাপ। রোগীদের অত্যন্ত কম পরিমানের খাবার খেতে দেওয়া হয়। এরফলে দীর্ঘক্ষণ অভুক্ত থাকতে হয় তাঁদের। হাসপাতালে কোনও ডায়েটিশিয়ান নেই। অথচ হাসপাতালে আবাসিকদের খাবার বাবদ মাসিক খরচ ১৫ লক্ষ টাকার বেশি বরাদ্দ করা আছে ! বরাত সরবারহকারী সংস্থার সঙ্গে হাসপাতালের কর্তৃপক্ষের একাংশের আঁতাঁতে কোনও রকম নজরদারি ছাড়াই পাস হয়ে যায় বিল। রোগীদের পোশাক নিয়েও উঠেছে একাধিক অভিযোগ। জানা গেছে রোগীদের পোশাক বাবদ মাসিক কোটি টাকারও বেশি বরাদ্দ করা কাছে।  যেখানে রোগীদের দিনের পর দিন একই পোষার পরিয়ে রাখা ছাড়াও নোংরা-অপরিচ্ছন্ন পোশাক পরিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে হাসপাতের বিরুদ্ধে।