নজরদারির কমিটি নিয়ে বিতর্কে শুভেন্দু, পাল্টা তোপ ফিরহাদের 

নজরদারির কমিটি নিয়ে বিতর্কে শুভেন্দু, পাল্টা তোপ ফিরহাদের 

আরোহী নিউজ ডেস্ক: ফের বিতর্কে গঙ্গাসাগর মেলা। কলকাতা হাইকোর্ট গঙ্গাসাগর মেলা নিয়ে প্রথমে একটি নজরদারি কমিটি গঠন করে। যেখানে ছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তারপর সেখান থেকে তাঁকে বাদ দেয় আদালত। দ্বিতীয় নজরদারি কমিটি গঠিত হয়। এই ঘটনাকে দুর্ভাগ্যজনক বলেছিলেন বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য। এই বাদ পড়া নিয়ে রাজ্য সরকারের সমালোচনা করেন শুভেন্দু অধিকারী। যার জবাবে রীতিমতো তুলোধনা করলেন কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

বুধবার বিবেকানন্দের জন্মদিন উপলক্ষে তাঁর বাড়ি সিমলা স্ট্রিটে মাল্যদাল করেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। আর সেখানেই এই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, 'প্রথমত শুভেন্দু অধিকারী ব্যক্তি নন, বিরোধী দলনেতা। কালকে রাজ্য সরকারের আপত্তি জানায়। পিটিশনগুলি সব রাজ্য সরকার করিয়েছে। বলে কোনও লাভ নেই, সবাইকে সবাই চেনে। রাজ্য সরকার বিজেপিকে ভয় পায়। বিরোধী দলনেতাকে ভয় পায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একমাত্র অ্যাজেন্ডা হল বিরোধী দলনেতাকে আটকাও। আমি পদের জন্য লালায়িত নই।’‌

আর ঠিক এরপরেই পাল্টা জবাব দেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। তিনি বলেন, ‘‌কেউ কাউকে ভয় পায় না। রাজ্য সরকার ওরকম একজন তুচ্ছ মানুষকে ভয় পাবে কেন? রাজ্য সরকার শুধু একা নয়, সমস্ত রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে কলকাতা হাইকোর্টের কাছে প্রস্তাব গিয়েছিল। কোনও রাজনৈতিক ব্যক্তিকে কেন কমিটিতে রাখা হবে। সে তো সরকারের বদনাম করার জন্য, রাজনৈতিক ফায়দা তোলার জন্য বিভেদের রাজনীতি করবে। নিরপেক্ষতার প্রশ্নেই হাইকোর্টে সওয়াল করা হয়েছে।’‌

গঙ্গাসাগর মেলা ঘিরে প্রথম থেকেই রয়েছে একাধিক বিতর্ক। তবে করোনার আবহে অবশেষে হাইকোর্টের নির্দেশে হচ্ছে এই মেলা। আজ, বুধবার আউট্রাম ঘাট থেকে মুখ্যমন্ত্রী এই মেলার উদ্বোধন করলেন। আর সেখানেই সমস্ত নিয়ম মেনে এই মেলা করার পরামর্শ দেন তিনি।