তালিবানী আতঙ্ক! কাবুল থেকে বিশেষ বিমানে ৫৫ জন শিখকে ফিরিয়ে আনা হল ভারতে

অমৃতসরের শিরোমণি গুরুদ্বার কমিটির পক্ষ থেকে শরণার্থীদের জন্য বিশেষ বিমানের ব্যবস্থা করা হয়

তালিবানী আতঙ্ক! কাবুল থেকে বিশেষ বিমানে ৫৫ জন শিখকে ফিরিয়ে আনা হল ভারতে

আরোহী নিউজডেস্ক:২০২১ সালে ফের একবার আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে তালিবান। মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পরই কার্যত নিশ্চিত হয়ে যায় আফগান প্রদেশে তালিবান শাসনের। ক্ষমতায় আসার পর তালিবানদের মুখে শোনা গিয়েছিল প্রগতির কথা, মানবাধিকারের কথা। পাশাপাশি আফগানিস্তানে বসবাসকারী সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তার বিষয়টিও নিশ্চিত করেছিল তালিবানরা। কিন্তু প্রতিশ্রুতিই সার। তালিবানের হাতে আফগানিস্তানের ক্ষমতা আসার পর উল্টো চিত্রটাই দেখা গেছে।  নিরাপত্তাজনিত কারণে রবিবার রাতেই ৫৫ জন আফগান শিখকে নিয়ে  কাবুল থেকে দিল্লি বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেছে বিশেষ বিমান।

তাঁদের সম্প্রদায়ের ৩০-৩৫ জন সদস্য এখনও রয়েছে আফগানিস্তানে। তালিবানদের হাত ধরে যে আফগানিস্তানে ফিরেছে অন্ধকার অতীত তা আফগানিস্তান ফেরা শিখদের কোথায় স্পষ্ট। সুখবির সিং নামক এক শরণার্থী জানান, " ভিসা সমস্যা দ্রুত সমাধান করে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য ভারত সরকারকে অসংখ্য ধন্যবাদ। " দেশে ফিরে অপর জনৈক শিখ শরণার্থী বালজিৎ সিং সংবাদ মাধ্যমকে জানান, " আমি আফগানিস্তানে প্রায়  চার মাস জেলবন্দি ছিলাম। জেলে আমাদের উপর নির্মম অত্যাচার করত তালিবানরা।  আমাদের চুলও কেটে নেওয়া হয়। ভারতে ফিরতে পেরে আমরা খুশি"।


প্রসঙ্গত, অমৃতসরের শিরোমণি গুরুদ্বার কমিটির পক্ষ থেকে শরণার্থীদের জন্য বিশেষ বিমানের ব্যবস্থা করা হয়। গত জুন মাসে কাবুলের গুরুদ্বার কর্তে পরবনাতে হামলা চালায় তালিবানরা। ঘটনার পর থেকে প্রায় ৬৮ জন আফগান শিখ ও হিন্দুকে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছে এই কমিটি। তাঁদের বিমানের খরচও বহন করেছে এই কমিটি। তাঁরা নিরাপদে ভাবে আফগানিস্তান থেকে বেড়িয়ে আস্তে পারলেও নিয়ে আস্তে পারেননি তাঁদের পবিত্র গুরু গ্রন্থ সাহিব ও সাচ্চি সাহিবের দুটি সংস্করণ। পবিত্র গ্রন্থদুটিকেও নিরাপদে ভারতে ফিরিয়ে আনার জন্য ভারত সরকারের দ্বারস্থ হতে চেলছেন শরণার্থীরা।