ভারী বৃষ্টির জেরে ধসের কবলে সিকিম, ঘুমন্ত অবস্থায় মৃত্যু দুই শিশু-সহ মায়ের 

ভারী বৃষ্টির জেরে ধসের কবলে সিকিম, ঘুমন্ত অবস্থায় মৃত্যু দুই শিশু-সহ মায়ের 

আরোহী নিউজ ডেস্ক:  টানা বৃষ্টিতে আবারও ধস নেমে বিপত্তি সিকিমের রাজধানী গ্যাংটকে ধসে চাপা পড়ে ঘুমের মধ্যেই  মৃত্যু একই পরিবারের তিন জনের। বাড়ির গৃহকত্রী এবং তাঁর দুই ছেলের মৃত্যু হয়েছে। গৃহকর্তা এখনও নিখোঁজ। গভীর রাতে ওই বাড়িতে মাটির চাঙর ভেঙে পড়ে বলে জানা গিয়েছে। এই ঘটনায় শোকের ছায়া এলাকায়। যান চলাচলেও সমস্যা দেখা দিয়েছে। ঘটনাস্থলে হাজির পুলিশ এবং প্রশাসন। সিকিমের গ্যাংটকের রঙ্গে দোকান দারা এলাকায় এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা  ঘটেছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, সোমবার রাত সওয়া ১টা নাগাদ ওই বাড়িতে বিশালাকার চাঙর ভেঙে পড়ে। সেই সময় গভীর নিদ্রায় ছিলেন পরিবারের সদস্যরা। তাই কিছু টের পাওয়ার আগে, ঘুমের মধ্যেই মারা যান তাঁরা। 

মৃত গৃহকত্রীকে ডোমা শেরপা বলে শনাক্ত করা গিয়েছে। তাঁর বয়স ২৭ বছর। সাত মাস এবং ১০ বছর বয়সি দুই ছেলেকে নিয়ে ঘরের মধ্যে ঘুমচ্ছিলেন তিনি। দুর্ঘটনার সময় গৃহকর্তা বিমল মঙ্গারও বাড়িতেই ছিলেন। কিন্তু স্ত্রী এবং দুই সন্তানের দেহ উদ্ধার করা গেলেও, তিনি এখনও নিখোঁজ। রাস্তার পাশে ওই বাড়িটির উপর ধস নেমে আসায়, যান চলাচলও বিঘ্নিত হয়েছে। ধ্বসস্তূপ সরিয়ে কোনও রকমে যান চলাচল স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে এই মুহূর্তে। তার পাশাপাশি এলাক ধস প্রবণ জায়গাগুলিকে আপাতত ঘিরে দেওয়া হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের তুলনামূলক নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে প্রশাসনের তরফে। অন্য দিকে, উত্তরবঙ্গে আরও বৃষ্টি বাড়বে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, দার্জিলিং, কালিম্পঙে লাল সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ওই জেলাগুলিতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে দুই দিনাজপুর জেলাতেও।