কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা নয়ছয় করেছে রাজ্য, এবার মোদিকে চিঠি শুভেন্দুর

চিঠিতে তিনি দাবি করলেন, কেন্দ্রের বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা নয়ছয় করেছে রাজ্য সরকার

কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা নয়ছয় করেছে রাজ্য, এবার মোদিকে চিঠি শুভেন্দুর

আরোহী নিউজডেস্ক: শুক্রবারই নয়াদিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রধানমন্ত্রীর হাতে তিনি কেন্দ্রের থেকে রাজ্যের বকেয়া সংক্রান্ত বিস্তারিত হিসেব জমা দেন। আর ঠিক তার পরদিনই রাজ্যের বিরোধী দলনেতা তথা বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী পাল্টা চিঠি দিলেন প্রধানমন্ত্রীকে। ওই চিঠিতে তিনি দাবি করলেন, কেন্দ্রের বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা নয়ছয় করেছে রাজ্য সরকার। মূস দাবি, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনা, মনরেগা-সহ বিভিন্ন প্রকল্পে বরাদ্দ যে অর্থ কেন্দ্রের তরফে দেওয়া হয়, তা সঠিক খাতে ব্যবহার করে না রাজ্য প্রশাসন। এখানে ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে বলেও দাবি শুভেন্দুর। তিনি চিঠিতে রীতিমতো বোমা ফাটিয়ে এও দাবি করেছেন, রাজ্যের বিডিও-দের একাংশ এই দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত। এছাড়া বিভিন্ন কেন্দ্রীয় প্রকল্পের নাম বদল করে রাজ্যের নামে চালানোর অভিযোগও করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো চিঠি নিজের টুইটার হ্যান্ডলে শেয়ার করেছেন।

শুভেন্দু অধিকারীর এই দাবির পরই প্রতিবাদে সরব হয়েছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন পালটা আক্রমণ করে বলে দেন, শুভেন্দুর চিঠিতে রাজনৈতিক অস্তিত্ব সংকটের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। আসলে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাক্ষাতের পর যদি রাজ্য বকেয়া অর্থ পেয়ে যায়, তাহলে অনেকেই অস্বস্তিতে পড়বে। যারা চায় না রাজ্যের উন্নতি হোক, তাদের মুখে ঝামা ঘষে দেওয়া যাবে। বোঝাই যাচ্ছে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পরই বঙ্গ বিজেপি অস্বস্তিতে পড়েছে। এর আগেও শুকান্ত মজুমদার ও শুভেন্দু অধিকারী অমিত শাহর কাছে দরবার করেছিলেন যাতে প্রধানমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা না করেন। কিন্তু বিজেপির সর্বোচ্চ নেতৃত্ব সেই আবদার নাকচ করে দিয়েছিলেন।