বিধাননগর পুরভোটে তৃণমূলের ইস্তেহার

বিধাননগর পুরভোটে তৃণমূলের ইস্তেহার

আরোহী নিউজ ডেস্ক: নিকাশি ও ডেঙ্গি মোকাবিলাই গুরুত্ব। বিধাননগর পুরভোটে তৃণমূলের ইস্তেহারে গুরুত্ব। সল্টলেকের দিশারী ভবনে শনিবার ইস্তেহার প্রকাশ করে তৃণমূল। জোর পানীয় জল সরবরাহেও।বিধাননগরবাসীর জীবনযাত্রা আরও সুগম করতে আবারও এগিয়ে এল তৃণমূল। পুরভোটের ইস্তেহারে গুরুত্ব পেল নিকাশি ও ডেঙ্গি মোকাবিলা। শুধু নিকাশি ও ডেঙ্গি মোকাবিলাই নয়, জল জমা থেকে বিধাননগরবাসীকে মুক্তি দিতে তার জন্য আরও পাম্পিং স্টেশন তৈরির প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, জোর দেওয়া হয়েছে সড়ক পরিকাঠামোতেও। ভাঙা রাস্তা মেরামতির সঙ্গে পানীয় জল সরবরাহ, নাগরিক বান্ধব ও সৌন্দর্যায়নে বিধাননগর গড়ে তোলারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তৃণমূল। সল্টলেকের দিশারী ভবনে ইস্তেহার প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক সুজিত বসু, সাংসদ সৌগত রায়, উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এছাড়াও হাজির ছিলেন বিধাননগরের বিদায়ী মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী সহ অন্যান্যরা।

তবে, তৃণমূল স্বচ্ছ-সুষ্ঠু বিধাননগর তৈরির প্রতিশ্রুতি দিলেও কটাক্ষ করেছে বিজেপি। রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের মন্তব্য, মানুষকে আসলে খুড়োর কল দেখায় তৃণমূল।নিকাশি ও ডেঙ্গি মোকাবিলাই গুরুত্ব। বিধাননগর পুরভোটে তৃণমূলের ইস্তেহারে গুরুত্ব। সল্টলেকের দিশারী ভবনে শনিবার ইস্তেহার প্রকাশ করে তৃণমূল। জোর পানীয় জল সরবরাহেও।

বিধাননগরবাসীর জীবনযাত্রা আরও সুগম করতে আবারও এগিয়ে এল তৃণমূল। পুরভোটের ইস্তেহারে গুরুত্ব পেল নিকাশি ও ডেঙ্গি মোকাবিলা। শুধু নিকাশি ও ডেঙ্গি মোকাবিলাই নয়, জল জমা থেকে বিধাননগরবাসীকে মুক্তি দিতে তার জন্য আরও পাম্পিং স্টেশন তৈরির প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, জোর দেওয়া হয়েছে সড়ক পরিকাঠামোতেও। ভাঙা রাস্তা মেরামতির সঙ্গে পানীয় জল সরবরাহ, নাগরিক বান্ধব ও সৌন্দর্যায়নে বিধাননগর গড়ে তোলারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তৃণমূল। সল্টলেকের দিশারী ভবনে ইস্তেহার প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক সুজিত বসু, সাংসদ সৌগত রায়, উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এছাড়াও হাজির ছিলেন বিধাননগরের বিদায়ী মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী সহ অন্যান্যরা।

তবে, তৃণমূল স্বচ্ছ-সুষ্ঠু বিধাননগর তৈরির প্রতিশ্রুতি দিলেও কটাক্ষ করেছে বিজেপি। রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের মন্তব্য, মানুষকে আসলে খুড়োর কল দেখায় তৃণমূল।নিকাশি ও ডেঙ্গি মোকাবিলাই গুরুত্ব। বিধাননগর পুরভোটে তৃণমূলের ইস্তেহারে গুরুত্ব। সল্টলেকের দিশারী ভবনে শনিবার ইস্তেহার প্রকাশ করে তৃণমূল। জোর পানীয় জল সরবরাহেও।

বিধাননগরবাসীর জীবনযাত্রা আরও সুগম করতে আবারও এগিয়ে এল তৃণমূল। পুরভোটের ইস্তেহারে গুরুত্ব পেল নিকাশি ও ডেঙ্গি মোকাবিলা। শুধু নিকাশি ও ডেঙ্গি মোকাবিলাই নয়, জল জমা থেকে বিধাননগরবাসীকে মুক্তি দিতে তার জন্য আরও পাম্পিং স্টেশন তৈরির প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, জোর দেওয়া হয়েছে সড়ক পরিকাঠামোতেও। ভাঙা রাস্তা মেরামতির সঙ্গে পানীয় জল সরবরাহ, নাগরিক বান্ধব ও সৌন্দর্যায়নে বিধাননগর গড়ে তোলারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তৃণমূল। সল্টলেকের দিশারী ভবনে ইস্তেহার প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক সুজিত বসু, সাংসদ সৌগত রায়, উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এছাড়াও হাজির ছিলেন বিধাননগরের বিদায়ী মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী সহ অন্যান্যরা।

তবে, তৃণমূল স্বচ্ছ-সুষ্ঠু বিধাননগর তৈরির প্রতিশ্রুতি দিলেও কটাক্ষ করেছে বিজেপি। রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের মন্তব্য, মানুষকে আসলে খুড়োর কল দেখায় তৃণমূল।