‘যা বলার ইডিকেই বলেছি’, হাসপাতালে ঢোকার মুখে রহস্য বাড়ালেন অর্পিতা!

এদিনও অর্পিতাকে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা যায়

‘যা বলার ইডিকেই বলেছি’, হাসপাতালে ঢোকার মুখে রহস্য বাড়ালেন অর্পিতা!

আরোহী নিউজডেস্ক: শুক্রবার নিয়মমাফিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য জোকা ইএসআই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল ইডি হেফাজতে থাকা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর ঘনিষ্ট অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে। এর আগে দুবার হাসপাতাল চত্বরে মুখ খুলেছিলেন অর্পিতা। কখনও সংক্ষিপ্ত মন্তব্য করেছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। কিন্তু এদিন তাৎপর্যপূর্ণভাবে মুখে কুলুপ আঁটলেন পার্থ। অর্পিতাও সাংবাদিকদের সামনে কোনও মন্তব্য করতে অস্বীকার করলেন, তবে রহস্য বাড়িয়ে জানালেন, ‘আমি যা স্টেটমেন্ট দেওয়ার ইডিকেই দিয়েছি’।

এদিনও অর্পিতাকে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা যায়। এমনকি কান্নার দমকে তাঁর মুখও বিকৃত হয়ে গিয়েছিল। এরমধ্যেই সাংবাদিকদের দিক থেকে ধেঁয়ে আসা প্রশ্নের সেভাবে কোনও উত্তর না দিলেও তাৎপর্যপূর্ণভাবে বললেন ইডিকেই তিনি যা বলার বলেছেন। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, এই মন্তব্যের মাধ্যমে অর্পিতা বোঝাতে চেয়েছেন, তদন্তে তিনি সহযোগিতা করছেন। এবং ইডির জেরায় তিনি বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিচ্ছেন।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, এর আগে পাঁচবার অর্পিতা ও পার্থকে হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। গত বুধবার অর্পিতা আদালতে যাওয়ার পথে দাবি করেছিলেন. ‘টাকা আমার অজান্তে, আমার অনুপস্থিতিতে ফ্ল্যাটে ঢোকানো হয়েছে’। মাত্র তিনদিনের মধ্যেই অর্পিতার মুখে উল্টো সুর রহস্য আরও বাড়িয়ে দিল। জানা যাচ্ছে, এর মধ্যে একবার অর্পিতার আইনজীবী আদালতের নির্দেশে দেখা করেছিলেন। মাত্র ১৫ মিনিটের জন্য দেখা করার সেই অনুমতি পাওয়া গিয়েছিল। ওয়াকিবহাল মহলের অনুমান, বেফাঁস কোনও মন্তব্য যাতে না হয়, সেই ব্যাপারে আইনজীবীরাই হয়তো নিষেধ করেছিলেন।