সাত সকালে মেট্রোতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা, ব্যাহত পরিষেবা 

সাত সকালে মেট্রোতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা, ব্যাহত পরিষেবা 

আরোহী নিউজ ডেস্ক :   সাত সকালে ফের মেট্রোয়  আত্মহত্যার চেষ্টা। যার ফলে ব্যাহত হল মেট্রো পরিষেবা। সাতসকালে কবি সুভাষগামী একটি মেট্রোর সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন এক ব্যক্তি। যদিও মেট্রোরেল সূত্রে খবর ওই ব্যক্তিr মৃত্যু হয়েছে। জানা গেছে,  সকাল ৭টা ৪৫ মিনিট নাগাদ এসপ্ল্যানেড স্টেশনে ডাউন লাইনে মেট্রোর সামনে ঝাঁপ দেন বছর পঁয়তাল্লিশের এক ব্যক্তি। সঙ্গে সঙ্গে ট্রেন থামানোর চেষ্টাও করেন চালক। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। আঘাত লাগে ওই ব্যক্তির। আধ ঘণ্টা পরে তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় কিছুক্ষণ ব্যাহত হয় মেট্রো পরিষেবা। জানা গেছে, সকাল ৭.৪৫ থেকে ৮.২০ পর্যন্ত কবি সুভাষ পর্যন্ত মেট্রো পরিষেবার বিঘ্ন ঘটে। পরে সকাল ৮.২৪ টা থেকে পরিষেবা স্বাভাবিক হয়। 

এই প্রথম নয়, বহুবারই মেট্রোতে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে ।উল্লেখ্য,  বছর দুয়েক আগে ২০১৯-এ ময়দান স্টেশনে নিউ গড়িয়াগামী একটি মেট্রোর সামনে ঝাঁপ দিয়েছিলেন এক যুবতী। তাঁকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হতে হয়েছিল সত্তরোর্ধ্ব এক বৃদ্ধকে। গুরুতর জখম ওই যুবতীকে উদ্ধার করে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর
গত বছরের মার্চে ফের রবীন্দ্রসদন মেট্রোয় আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন এক ব্যক্তি।

বিভিন্ন সময়েই এ ধরনের ঘটনার খবর সামনে এসেছে। আর এই সব ঘটনার প্রভাব সরাসরি পড়ে মেট্রো পরিষেবার ক্ষেত্রে। পরিষেবা ব্যাহত হওয়ায় দুর্ভোগের মুখে পড়তে হয় যাত্রীদের। করোনার বিধিনিষেধের জেরে এমনিতেই ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে চলছে মেট্রো। কর্মব্যস্ত একটি দিনের সাত সকালে এমন ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই ভোগান্তির মুখে পড়তে হয় যাত্রীদের। 

কলকাতা মেট্রোর স্টেশনগুলিতে  কড়া নজরদারি সত্ত্বেও  লাইনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনা রোখা যায়নি। তার জেরে বিভিন্ন সময়েই পরিষেবা ব্যহত হওয়ায় ভোগান্তির মুখে পড়তে হয় নিত্যযাত্রীদের। এই ধরনের ঘটনা এড়াতে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোতে স্ক্রিন-ডোর বসানো হয়েছে। তবে কলকাতা মেট্রোর স্টেশনগুলিতে এই ব্যবস্থা নেই।