ছেলে বেলার জানা তথ্য  পৃথিবী তার নিজ অক্ষে সম্পূর্ণ ঘূর্ণনের সময় নেয় ২৪ ঘন্টা , এই তথ্য এখন কিছুটা হলেও ভুল

ছেলে বেলার জানা তথ্য  পৃথিবী তার নিজ অক্ষে সম্পূর্ণ ঘূর্ণনের সময় নেয় ২৪ ঘন্টা , এই তথ্য এখন কিছুটা হলেও ভুল

পৃথিবী নিজের  অক্ষে ২৪ ঘন্টায় তার একটি সম্পূর্ণ ঘূর্ণন  সম্পন্ন করে তার আমরা কমবেশি ছোট বেলায় সবাই পড়েছে। তবে এখন সেই সম্পুর্ণ পরিক্রমা করতে লাগে ২৪ ঘন্টারও কম সময় । ২৯ জুলাই, পৃথিবী ২৪ ঘন্টা হওয়ার  ১.৯ মিলিসেকেন্ড আগে তার অক্ষে একটি ঘূর্ণন সম্পন্ন করেছে। বিজ্ঞানীরা বলছেন যে ঘূর্ণনের গতি সম্প্রতি বৃদ্ধি পাচ্ছে, তবে এর কারণ সঠিক ভাবে এখনও জানা যায়নি। দিনে দিনে যদি এমন পৃথিবী  ঘূর্ণনের গতি বাড়তে থাকে তবে পৃথিবীর নিজের  অক্ষের চারপাশে ২৪ ঘন্টারও কম সময়ের একটি সম্পূর্ণ  ঘূর্ণন সম্পন্ন করবে পৃথিবী।


বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন  এটি যোগাযোগ ব্যবস্থার জন্য তেমন ভালো হবে না। এই তথ্য অনুযায়ী মনে হতে পারে  পৃথিবী যেন দ্রুত ঘুরছে , কিন্তু আদতে দীর্ঘ সময় বিবেচনা করলে বোঝা যাবে যে এটি আসলে কিন্তু ধীরে গতিতে চলছে। বিজ্ঞানীদের তথ্য অনুযায়ী গ্রহ প্রতি শতাব্দীতে একটি সম্পূর্ণ ঘূর্ণন  করতে কয়েক মিলিসেকেন্ডের বেশি সময় নিচ্ছে। তথ্য বলছে ২০২০ সালে, পৃথিবী ৬০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ছোট মাস দেখেছিল। ২০২০,১৯ জুলাই তারিখটি ২৪ ঘন্টার চেয়ে কম ছিল প্রায় ১.৪৭ মিলিসেকেন্ড মতো । 


অনেক বিজ্ঞানী বিশ্বাস করেন যে বর্তমানের পরিবেশ দূষণ ,  জলবায়ু পরিবর্তন, সমুদ্রের তরঙ্গের গতিবিধি এবং পৃথিবীর কেন্দ্রে থাকা কণা দের ঘূর্ণনের গতি বৃদ্ধি তথা, পৃথিবীর ঘূর্ণনের গতি বৃদ্ধির জন্য দায়ী। তবে আরেক দলের বিশ্বাস , যে পৃথিবীর ভৌগলিক মেরু এর গতিকে এর  জন্য দায়ী করছে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, যদি গতি বাড়তে থাকে, তাহলে এক সেকেন্ডে ১ সেঞ্চুরি পূর্ণ করবে। এমন পরিস্থিতিতে, তারা সময়ের সাথে ১ লিপ সেকেন্ড যোগ করতে বাধ্য হবে। এটি করায় আরও অসুবিধা বাড়াবে বলে মনে করছেন বিশ্বের তথ্য ও প্রযুক্তিতে। এটি মনে  করা হচ্ছে কম্পিউটার প্রোগ্রামগুলি বিপর্যস্ত হতে পারে যদি সময় এক সেকেন্ডে পরিবর্তন হয়। তাছাড়াও জিপিএস সিস্টেম, ইনটারনেট পরিসেবা ব্যাহত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। বিজ্ঞানীদের মূল চিন্তার বিষয় যদি উপগ্রহের অবস্থান বদলে যায় তবে বড় রকমের ক্ষতি হতে পারে।