তল্লাশির পর দিল্লির ন্যাশনাল হেরাল্ডের দফতর সিল করে দিল ইডি

দিল্লির ন্যাশনাল হেরাল্ডের দফতরে চলেছিল দীর্ঘ তল্লাশি অভিযান

তল্লাশির পর দিল্লির ন্যাশনাল হেরাল্ডের দফতর সিল করে দিল ইডি

আরোহী নিউজডেস্ক: আর্থিক তছরুপের অভিযোগে কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেতা সোনিয়া ও রাহুল গাঁধীকে বেশ কয়েকবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। এরপর দিল্লির ন্যাশনাল হেরাল্ডের দফতরে চলেছিল দীর্ঘ তল্লাশি অভিযান। মঙ্গলবার দিনভর তল্লাশির পর বুধবারই ওই অফিস সিল করে দিল ইডি। তদন্তকারী সংস্থা জানিয়ে দিয়েছে, তাঁদের অনুমতি ছাড়া অফিস খোলা যাবে না। ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করেছে কংগ্রেস।

মঙ্গলবার ন্যাশনাল হেরাল্ডের সদর দফতর হেরাল্ড হাউস-সহ ১২টি জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালিয়েছিল ইডি। তার আগে রাহুল গান্ধিকে পাঁচ দিনে ৫৫ ঘণ্টা এবং কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধিকে তিন দিনে ১২ ঘণ্টার বেশি জেরা করেছিলেন ইডির তদন্তকারীরা। ইডির দাবি ছিল, জেরা পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই এই তল্লাশি অভিযান চলে। এবার গোটা দফতর সিল করে দিল তদন্তকারী সংস্থা। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়েছে। কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি বলেন, ‘এই সরকার চায়, বিরোধীরা কোনও প্রশ্ন না করে সব মেনে নিক। আমি সবাইকে বলতে চাই, এদের ভয় পাওয়ার কোনও দরকার নেই। এককাট্টা হয়ে লড়লেই এরাই ভয় পেয়ে যাবে’। উল্লেখ্য, তৃণমূল কংগ্রেসেরও একই দাবি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ তৃণমূলের অন্যান্য নেতা-নেত্রীরাও দাবি করেন, কেন্দ্রের বিজেপি সরকার সিবিআই, ইডি-র মতো কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে ব্যবহার করছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিকে হেনস্থা করার জন্য।