শিয়ালের আক্রমণে দিশেহারা গোবরডাঙ্গার বাজে বেলিনি গ্রাম, জখম ৫-৬ জন

আহতদের মধ্যে দু বছরের একটি শিশুও রয়েছে। শিয়াল তাঁকে কামড়ে জঙ্গলে নিয়ে যাবার চেষ্টা করেছিল বলে দাবি

শিয়ালের আক্রমণে দিশেহারা গোবরডাঙ্গার বাজে বেলিনি গ্রাম, জখম ৫-৬ জন

আরোহী নিউজডেস্ক:  এলাকায় যেন রাজার মতো চলছে শিয়ালের দল। সুযোগ পেলেই যার তার উপর হামলে পড়ছে। সন্ধ্যের পর কার্যত গৃহবন্দি এলাকার বাসিন্দারা। কোনও কারণে প্রয়োজন হলে লাঠিসটা- দা-হেশো- উইকেট যে যা পারছেন তাই নিয়ে রাস্তায় বের হচ্ছেন এলাকার বাসিন্দারা। শিয়ালের কামড়ে জখম হয়েছেন এখনও পর্যন্ত চার-পাঁচ জনের বেশি। আহতদের মধ্যে দু বছরের একটি শিশুও রয়েছে। শিয়াল তাঁকে কামড়ে জঙ্গলে নিয়ে যাবার চেষ্টা করেছিল বলে দাবি। বাড়ির মহিলারা প্রতিআক্রমণ করলে শেয়াল পিছু হটতে বাধ্য হয়। ঘটনায় আতঙ্কিত এলাকার বাসিন্দারা। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার গোবরডাঙ্গার বেড়গুম-১ নম্বর পঞ্চায়েতের বাজে বেলিনি এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যাচ্ছে, গত রবিবার রাত থেকে এলাকায় শিয়ালের উৎপাত বেড়ে গিয়েছে। আগে মাঝে মধ্যে হাঁস-মুরগি ছাগলছানা নিয়ে যেত শেয়ালের দল। কিন্তু ইদানিং টার্গেট যেন মানুষ। লাঠি নিয়ে তাড়া করলেও উল্টো তেড়ে আসছে শিয়াল এমনটাই জানাচ্ছেন বাসিন্দারা। বাসিন্দারা বনদফতরের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। পঞ্চায়েতের তরফেও বনদফতরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। কিভাবে এর সুরাহা মিলবে বুঝতে পারছেন না কেউই। কিছুদিন আগে দেগঙ্গায় শিয়ালের আতঙ্কে অতিষ্ঠ হয়েছিলেন দেগঙ্গার বাসিন্দারা। কয়েকজন শিয়ালের কামড়ে জখম হয়। এবার আতঙ্ক গোবরডাঙ্গায়। আহতদের চিকিৎসা হয় হাবড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতাল ও মছলন্দপুর ব্লক হাসপাতালে। বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞদের মতে, গাছ কাটা এবং জঙ্গল কমে যাওয়ার জন্যই শেয়াল গ্রামে ঢুকে পড়ছে। মূলত খাবারের সন্ধানেই বণ্যপ্রাণীরা মানুষকে আক্রমণ করছে। রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলে হাতির দল ঢুকে পড়ছে গ্রামগুলিতে। এবার শিয়ালের আক্রমণের খবর আসছে উত্তর ২৪ পরগনা থেকে।