উপনির্বাচনে শাসক জোটের প্রার্থীদের 'ক্লিন বোল্ড' ইমরানের!

সদ্য শেষ হওয়া ১০ কেন্দ্রের উপনির্বাচনে বিপুল সাফল্য পেল ইমরান খানের দল তেহরিক-ই- ইনসাফ

উপনির্বাচনে শাসক জোটের প্রার্থীদের 'ক্লিন বোল্ড' ইমরানের!

আরোহী নিউজডেস্ক: 'কখনও হাল ছেড়ো না, জীবন যতই কঠিন হোক না কেন, আপনি যতই কষ্ট অনুভব করেন না কেন। ব্যথা শেষ পর্যন্ত কমে যাবে, কিছুই চিরকাল থাকেনা। তাই এগিয়ে চলো, হাল ছেড়ো না।' এই অনুপ্রেরণামূলক কথাগুলি যে কেবল কথার কথা নয়, তার জীবনমন্ত্র তা আবার প্রমাণ করলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এক সময়ে পাকিস্তান ক্রিকেটের এই ডাকাবুকো অধিনায়ক জানেন প্রত্যাবর্তন কাকে বলে। অবসর থেকে ফিরে দেশকে ৯২ বিশ্বকাপ জিতিয়েছিলেন। এবার রাজনৈতিক মঞ্চেও অপ্রত্যাশিতভাবে প্রত্যাবর্তনের ইঙ্গিত দিলেন ইমরান।


সদ্য শেষ হওয়া ১০ কেন্দ্রের উপনির্বাচনে বিপুল সাফল্য পেল ইমরান খানের দল তেহরিক-ই- ইনসাফ। ১০ কেন্দ্রের মধ্যে ৮ টি আসনে জয়লাভ করেছে ইমরানের দল। এই ৮ টি আসনের মধ্যে ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির ৬ টি ও পাঞ্জাব অ্যাসেম্বলির ২ টি আসন রয়েছে। ২০১৮ সালে এই আসনগুলিতে জিতেছিল পিটিআই।


রবিবার সকাল ৮ টায় শুরু হয় ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া। শেষ হয় বিকেল ৫ টায়। তারপরই গণনা শুরু হয়। গণনা শুরু হতেই দেখা যায় ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির ফয়সলাবাদ, নানকানা সাহিব, মর্দান, চারসদ্দা ও পেশওয়ার এবং পাঞ্জাব অ্যাসেম্বলির বাহাওয়ালনগর, খানেওয়াল ও শেখুপুরা আসনগুলিতে শাসকদলের জোট প্রার্থীদের বড় ব্যবধানে পিছনে ফেলে এগিয়ে যায় পিটিআই প্রার্থীরা। তবে পিটিআই প্রার্থীদের হারিয়ে মালি ও মুলতান দুই আসনে জিতেছে জোট প্রার্থীরা। ফলাফল প্রকাশ হতেই নিজের দলের বিজয়ী প্রার্থীদের শুভেচ্ছা বার্তা পাঠান পিটিআই অধিনায়ক ইমরান। এই বছরের এপ্রিল মাসে আস্থা ভোটে হেরে গদি হারান ইমরান। এই নির্বাচনের ফল আগামীদিনে ইমরানের দলকে বাড়তি অক্সিজেন জোগাবে বলে মত রাজনীতিবিদদের।