গোয়াতে কংগ্রেস ও তৃণমূলের জোটের পালে হাওয়া, শরদ পাওয়ারের মন্তব্যে জল্পনা

গোয়াতে কংগ্রেস ও তৃণমূলের জোটের পালে হাওয়া, শরদ পাওয়ারের মন্তব্যে জল্পনা

আরোহী নিউজ ডেস্ক : দীর্ঘদিনের মনোমালিন্য কাটিয়ে অবশেষে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করতে পারে তৃণমূল। যদিও গোয়ায় তৃণমূলের সঙ্গে জোটের সম্ভাবনা কংগ্রেস উড়িয়ে দিলেও জল্পনায় ইতি পড়ছে না। বরং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সেই জল্পনায় আরও বেশি   গতি পাচ্ছে। বিজেপিকে হারাতে ফের "হাত" ধরতে পারে  তৃণমূল, মঙ্গলবার সে ইঙ্গিতই দিলেন খোদ এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পওয়ার। মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর স্পষ্টই জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর দল এনসিপি গোয়ায় কংগ্রেস এবং তৃণমূলের সঙ্গে আসন সমঝোতা নিয়ে আলোচনা করছে।

শরদ পওয়ার মঙ্গলবার বলেছেন,”গোয়ায় সরকার বদলাতে হবে। বিজেপি  সরকার বদলানো দরকার।” বিজেপি বিরোধী সম্ভাব্য মহাজোট প্রসঙ্গে বর্ষীয়ান নেতার বক্তব্য,”তৃণমূল, এনসিপি এবং কংগ্রেস জোট নিয়ে আলোচনা করছে। আমরাও আমাদের পছন্দের আসনের তালিকা দিয়েছি। খুব দ্রুতই সিদ্ধান্তে পৌঁছানো যাবে।” পাওয়ারের এই মন্তব্যের পর গোয়ায় বিজেপির বিরুদ্ধে কংগ্রেস এবং তৃণমূলের যদিও নড়েচড়ে বসেছে । পাওয়ার নিজেই জানিয়েছেন, যদিও জোট নিয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি। সবটাই আলচনার স্তরে।

শরদ পওয়ার এই মুহূর্তে দেশের সবচেয়ে বরিষ্ট নেতা। এই মুহূর্তে জাতীয় রাজনীতিতে অন্যতম বিজেপি বিরোধী মুখ তিনি। ঘটনাচক্রে কংগ্রেস এবং তৃণমূল দুই দলের সঙ্গেই তাঁর সম্পর্ক বেশ ভাল। সেই পওয়ার যখন নিজে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং রাহুল গান্ধীকে এক ছাতার তলায় আনার চেষ্টা করছেন, তখন গোয়ায় কংগ্রেস-তৃণমূলের জোট সম্ভাবনা পুরোপুরি উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

প্রসঙ্গত, তৃণমূলের গোয়ার পর্যবেক্ষক মহুয়া মৈত্রর করা এক টুইটের পর থেকেই গোয়ায় তৃণমূল এবং কংগ্রেসের মধ্যে জোটের জল্পনা শুরু হয়েছে। তৃণমূলের দেওয়া ‘জোটবার্তা’কে ঘুরিয়ে স্বাগত জানিয়েছিল কংগ্রেসও। সোমবার কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীও গোয়ার নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। যদিও, সেই বৈঠকের পর কংগ্রেসের তরফে সরকারিভাবে তৃণমূলের সঙ্গে জোটের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।