সুখবর, ২ বছর পর তারাপীঠে কৌশিকী অমাবস্যায় ভক্ত সমাগমে অনুমতি

করোনা পরিস্থিতি কাটিয়ে চলতি বছর কৌশিকী অমাবস্যায় পাঁচ লক্ষের বেশি ভক্তের সমাগম হতে চলেছে তারাপীঠে

সুখবর, ২ বছর পর তারাপীঠে কৌশিকী অমাবস্যায় ভক্ত সমাগমে অনুমতি

আরোহী নিউজডেস্ক: করোনা পরিস্থিতি কাটিয়ে চলতি বছর কৌশিকী অমাবস্যায় পাঁচ লক্ষের বেশি ভক্তের সমাগম হতে চলেছে তারাপীঠে। এমনটাই মনে করছেন বীরভূম জেলা প্রশাসনেক কর্তারা। শুক্রবার প্রশাসনিক বৈঠকে এই বিষয়ে বিষয়ে আলোচনা হয়। এরপর জেলা প্রশাসনের তরফে বেশ কয়েকটি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তারাপীঠে প্রতিবছর কৌশিকী অমাবস্যায় পাঁচ লক্ষের বেশি ভক্তের সমাগম হয়ে থাকে। কিন্তু করোনা আবহে গত ২ বছর তারাপীঠে কৌশিকী অমাবস্যায় জনসমাগম বা ভক্তদের প্রবেশ নিষেধ ছিল। তবে রীতিনীতি মেনে পুজো হয়েছে শুধুমাত্র মন্দির কর্তৃপক্ষের উপস্থিতিতে। বাকি ভক্তদের অবাধ প্রবেশে ছিল নিষেধাজ্ঞা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকায় এ বছর কৌশিকী অমাবস্যায় কোনও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হচ্ছে না। ফলে আগের মতই ভিড় হবে বলে মনে করা হচ্ছে। কৌশিকী অমাবস্যায় কি কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে তা নিয়ে ইতিমধ্যেই রুপরেখা তৈরি করা হয়েছে। চলতি বছর ভাদ্রমাসে কৌশিকী অমাবস্যা পড়ছে আগামী ২৬ আগস্ট। এই কৌশিকী অমাবস্যার আগের দিন অর্থাৎ ২৫ আগস্ট থেকে ২৮ আগস্ট পর্যন্ত প্রশাসন নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেবে তারাপীঠ মন্দির।

আগত ভক্তদের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে যাতে কোনওরকম ত্রুটি না হয় তার জন্য মন্দির কমিটির সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জেলা প্রশাসন স্থানীয় হোটেল ও পরিবহনের সঙ্গে যুক্ত সংগঠনগুলিকে একাধিক নির্দেশ দিয়েছে। ওই সময় গোটা তারাপীঠ এলাকায় মোট ১৩১টি সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো হবে অতিরিক্ত নজরদারির জন্য। তারাপীঠ মন্দির চত্বরে থাকবে পাঁচটি ড্রোন ক্যামেরা। মোতায়েন করা থাকবে বিশাল পুলিশ বাহিনী, মোট পাঁচটি ক্যাম্প করা হবে শুধুমাত্র যারা বিনা মাস্কে আসবেন তাদের মাস্ক বিতরণের জন্য।

এ ছাড়াও থাকবে দমকল বাহিনী, জরুরী বিভাগে ডাক্তারি পরিষেবা সবকিছুই। তারাপীঠের পাশেই দ্বারকা নদীতে স্নান করতে গিয়ে কোনও দর্শনার্থী যাতে অসুবিধায় না পড়েন সেই জন্য থাকবে ডুবুরি। জানা গিয়েছে, সাধারণ দর্শনার্থীদের জন্য দু'লক্ষর কাছাকাছি জলের প্যাকেটের ব্যবস্থা থাকবে। কৌশিকী অমাবস্যার সময় যাতে বাড়তি ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয় তার জন্য রেলের কাছে আবেদন জানানো হবে প্রসাশনের পক্ষ থেকে।