বড়সড় সিদ্ধান্ত নিলেন মদন মিত্র! মন খারাপ তাঁর অনুগামীদের

বড়সড় সিদ্ধান্ত নিলেন মদন মিত্র! মন খারাপ তাঁর অনুগামীদের

আরোহী নিউজ ডেস্ক: মদন মিত্র মানেই ফেসবুক লাইভ! কেননা তৃণমূল নেতা ও বিধায়ক হওয়ার পাশাপাশি তাঁর তুমুল জনপ্রিয়তা রয়েছে তাঁর ফেসবুক লাইভের জন্য। আর সেখান থেকেই ইতি টানতে চাইছেন মদন মিত্র স্বয়ং। তাঁর এই সিদ্ধান্তে স্বাভাবিক ভাবেই মন খারাপ তাঁর অসংখ্য অনুরাগীর। বৃহস্পতিবার নিজেই এই কথা ঘোষণা করেছেন তৃণমূল বিধায়ক। ফলে আপাতত আর তাঁকে দেখা যাবে না ফেসবুক লাইভে  ।

মদন মিত্র জানিয়েছেন, আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত ফেসবুক বা ইন্সটাগ্রাম লাইভ করবেন না তিনি। এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইভ করেই এ কথা জানিয়ে দেন মদন মিত্র। কামারহাটির বিধায়ক জানিয়েছেন, 'আমার কাছে নির্দেশ এসেছে বেশি ফেসবুক করলে ফেস নষ্ট হয়। আমার ফেসবুক, আমি মদন মিত্র বলে দেখে না। আগামী ৩০ জুন অবধি আমার ফেসবুক খতম। কোনও আন্দোলন, ঘটনা, অনুষ্ঠান, দলের প্রচার হলে আমার টিম প্রচার করবে। আমি দলের নির্দেশ মতো চলবো।'

কিন্তু আচমকা এমন সিদ্ধান্ত কেন জনপ্রিয় মদন মিত্রের? তিনি বলেছেন, 'আমার বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ ওঠেনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনও সমস্যার মুখে পড়তে হয়নি। তবে নির্দেশ এসেছে, মদন তুমি ফেসবুক ছেড়ে দাও। বেশি সোশ্যাল মিডিয়া করলে তোমার ফেসবুকের গ্ল্যামার নষ্ট হয়ে যাবে। তৃণমূল কংগ্রেসই আমার কাছে সব। দলের জন্যই আমার ফেসবুক, ইনস্টা লোকে দেখে। মদন মিত্র বলেও দেখে না, এমএলএ বলেও দেখে না। তৃণমূলের লক্ষ লক্ষ কর্মীর মতো আমার কথা শোনে। মদন মিত্র এখন আর ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম করবে না। তবে কোনও প্রোগ্রাম, আন্দোলন, তৃণমূলের কোনও প্রচার হলে, আমার ডিজিটাল টিম প্রচার করবে। এর বাইরে সোশ্যাল মিডিয়ায় সক্রিয় দেখা যাবে না। দল যেভাবে নির্দেশ দেবে, সেভাবে চলব'।
নানা রকম বিষয় নিয়েই ফেসবুক লাইভ আসেন কামারহাটির বিধায়ক। তা সে দলের হয়ে কিছু প্রচারে অথবা নিতান্তই নিজের নাতির বিষয়ে দুষ্টু- মিষ্টি গল্প শোনাতে। তবে কিছু দিন ধরেই লাইভে এসে একাধিক বিতর্কিত মন্তব্য করতে শোনা।গিয়েছিল তাঁকে। যা কার্যত তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বকে অস্বস্থিতে ফেলেছে । পরিস্থিতি সামলাতে আসরে নামেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। কয়েকদিন আগেই তৃণমূল কংগ্রেসের শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির তরফ থেকে ফেসবুকে মদনের বিভিন্ন বিষয়ে সরব হওয়া নিয়ে সতর্ক করা হয়। মদন মিত্র জানান, 'পার্থ চট্টোপাধ্যায় আমায় ফোন করেছিলেন। এই বিতর্কে এখনই ইতি টানতে বলেন। বলে দিয়েছেন, কীভাবে শৃঙ্খলা রক্ষা করতে হয়, আমি সেভাবেই করব। আমি দলের পাহারাদার।' এর পরই বৃহস্পতিবার সোশ্যাল মিডিয়া থেকে বিরতি নেওয়ার কথা ঘোষণা করে দিলেন নেট দুনিয়ার 'লাভলি বয়' ।

ছবি সৌজন্যে :  গুগল