সবাইকে টিকা দেওয়া যাবে না,কোভিডকে  দেখতে হবে ফ্লু হিসাবে,দাবি বিশেষজ্ঞের

সবাইকে টিকা দেওয়া যাবে না,কোভিডকে  দেখতে হবে ফ্লু হিসাবে,দাবি বিশেষজ্ঞের

আরোহী নিউজ ডেস্ক :  একদিকে যেমন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রধান বা অন্য বিজ্ঞানীরা বলছেন, যত বেশি মানুষকে টিকা দেওয়া যায়, তত তাড়াতাড়ি শেষ হবে করোনা উপদ্রব, তেমনই এর উল্টো মতও আছে। ঠিক এর মধ্যেই এই দাবির উল্টো সুরে গাইলেন ইংল্যান্ডের চিকিৎসক ক্লাইভ ডিক্স। 

ইংল্যান্ডের সরকারের ভ্যাকসিন টাস্কফোর্সের প্রাক্তন চেয়ারম্যান ক্লাইভ এমন দাবি করেছেন, ইংল্যান্ডকে এবার ‘নিউ নর্মালিটি’তে যেতে হবে। সেখান সবাইকে আর টিকা দেওয়া যাবে না। এবার কোভিডকে ফ্লু হিসাবে ভাবতে হবে। আর তাতেই নাকি শেষ হবে এই রোগটির উপদ্রব। 

অন্যদিকে ইংল্যান্ডে বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু হয়েছে। পরিসংখ্যান বলছে, এটি কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াই করার অ্যান্টিবডি ভালো মতো জোগান দিচ্ছে। কিন্তু ক্লাইভের আপত্তি এখানেই। তাঁর বক্তব্য, অনেকের শরীরেই তৈরি হয়ে গিয়েছে পর্যাপ্ত অ্যান্টিবডি। তাঁদের আলাদা করে বুস্টার দেওয়ার কোনও অর্থ হয় না। এমনকী সবাইকে টিকা দেওয়ার প্রয়োজনও নেই।

তাহলে কাদের টিকা দিতে হবে? ক্লাইভের বক্তব্য, যাঁদের কঠিন অসুখ আছে, কো-মর্বিডিটির মতো সমস্যা আছে, যাঁরা দীর্ঘ দিন ধরে কোনও অসুখে ভুগছেন বলে শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে না, তাঁদের জন্যই শুধু রাখতে হবে এই ভ্যাকসিন। বাকি সকলকে টিকা দেওয়ার কোনও প্রয়োজন নেই।

এবার থেকে কোভিডকে কীভাবে দেখতে হবে? তাঁর বক্তব্য এই সংক্রমণকে দেখতে হবে সাধারণ ফ্লু হিসাবে,। এমনকী সকলের কোভিডের পরীক্ষা করানোর প্রয়োজন আছে বলেও তিনি মনে করেন না। ইংল্যান্ডের এক সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, ‘সকলের কোভিড পরীক্ষার দরকার নেই। যাঁরা অসুস্থ বোধ করছেন, তাঁরা নিজেদের আইসোলেশনে রাখবেন। সুস্থ হয়ে গেলে আবার কাজে ফিরবেন। মারাত্মক ফ্লুয়ের মরশুমে আমরা তো এভাবেই থাকি। সেই নিয়মই মেনে চলতে হবে।’

তবে ক্লাইভের এই দাবি, কত দূর যুক্তিসঙ্গত, তা নিয়ে এখনও মন্তব্য করেননি অন্য কোনও বিজ্ঞানী বা চিকিৎসক। ইংল্যান্ডে টিকাকরণের নীতিতেও কিছু বদল আসছে কি না, তাও জানা যায়নি।