গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে তৃণমূল নেতারা খুন হচ্ছেন! দাবি দিলীপের

গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে তৃণমূল নেতারা খুন হচ্ছেন! দাবি দিলীপের

আরোহী নিউজ ডেস্ক :  গত সপ্তাহে গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে দুই তৃণমূল নেতার। এতে মূলত তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্বকেই দায়ী করেছেন বিজেপির সর্ব ভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন আসানসোল গিয়ে এক চা চক্রে যোগ দিয়ে একাধিক বিষয় নিয়ে তৃণমূলকে নিশানা করেন তিনি। 

দিলীপ ঘোষ এদিন বলেন, "জেলায় জেলায় তৃনমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে তৃনমুল নেতারা খুন হচ্ছেন, আইনশৃঙ্খলা বলে কিছু নেই। ত্রিপুরায় এখানে উপনির্বাচনে মানুষকে ভোট দিতে দেয়নি,এই হিংসার রাজনীতিটাকে অন্য রাজ্যে নিয়ে যেতে চাইছেন তাই লোকে প্রতিরোধ করছেন"।

মঙ্গলবার দিল্লিতে তৃণমূলে দলে যোগ করেন জেডিইউ-র প্রাক্তন সাংসদ পবন বর্মা ও কংগ্রেসের কীর্তি আজাদ।এর পাশাপাশি এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন কবি ও গীতিকার জাভেদ আখতারও। গত জুলাই মাসেও মমতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন জাভেদ আখতার। বিজেপির সরকারের বিরুদ্ধে বরাবর সরব হয়েছেন তিনি। 

এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষের মন্তব্য, "তৃণমূল কংগ্রেস এখন ডাস্টবিনে পরিণত হয়েছে। বৃদ্ধাবাস হয়ে গিয়েছে দলটা। কাকে কোন পদ দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, সেটা উনি বলতে পারবেন। সব দল থেকে বিতাড়িত নেতাদের নিয়ে আসছে নিজের দলে। তাঁদের পুনর্বাসন দেওয়ার জায়গা হয়ে গিয়েছে তৃণমূল।"