ইউক্রেন : নয়াদিল্লির ভূমিকার সমালোচনা বাইডেনের

ইউক্রেন : নয়াদিল্লির ভূমিকার সমালোচনা বাইডেনের

আরোহী নিউজ ডেস্ক: ইউক্রেন ইস্যুতে ভারতের ভূমিকার সমালোচনা করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। সরাসরি বললেন, ইউক্রেন ইস্যুতে আমেরিকার অন্যান্য সহযোগী স্পষ্ট অবস্থান নিলেও, নয়াদিল্লি তা করেনি। বরং নয়াদিল্লির অবস্থান যে নড়বড়ে তা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বললেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন।


ইউক্রেনে হামলার পরেই রাশিয়ার ওপর একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারির পথে হেঁটেছে আমেরিকা-ব্রিটেন। নিষিদ্ধ করা হয়েছে রাশিয়ার দুটি বৃহত্তম ব্যাঙ্ককে। একই ভাবে তেল আমদানির ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করার পথে হেঁটেছে ওয়াশিংটন। আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা মেনে সহযোগী অনেক দেশ-ই রাশিয়ার থেকে তেল আমদানি বন্ধ করেছে। তবে, দীর্ঘদিনের সহযোগী ভারত, সে রাস্তায় হাঁটেনি। বরং, যুদ্ধ পরিস্থিতিতে তুলনামূলক অনেক কম দামে রাশিয়ার থেকে তেল আমদানি করেছে নয়াদিল্লি। পাশাপাশি, ইউক্রেনে হামলা নিয়ে রাশিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রসঙ্ঘে প্রস্তাব পাসের সময় অনুপস্থিত থেকেছে নয়াদিল্লি।


এই অবস্থায় মস্কোর বিরোধিতা করার জন্য নয়াদিল্লিকে বারেবারে পাশে চেয়েছিল ওয়াশিংটন। কিন্তু রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার পদক্ষেপের সমালোচনা করলেও, কোনওবারই ভোটাভুটিতে সরাসরি অংশগ্রহণ করেনি ভারত। আর নয়াদিল্লির এই ভূমিকা যে ভাল চোখে ওয়াশিংটন দেখছে না তা গোপন না করে সরাসরি ব্যক্ত করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। স্পষ্ট বলেছেন, ন্যাটো গোষ্ঠীভুক্তগুলো সহ অন্যান্য দেশ এমনকী এশিয়ায় আমেরিকার সহযোগীরা রাশিয়ার বিরুদ্ধে কড়া অবস্থান নিয়েছে। কিন্তু নয়াদিল্লির সে ভূমিকা দেখা যায়নি। উল্টে, নয়াদিল্লি যে নড়বড়ে অবস্থান নিয়েছে তাও স্পষ্ট ভাষায় বলেছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন।


শুধু ভারত-ই নয়, একই ভাবে রাশিয়ারও কড়া সমালোচনা করেছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। অভিযোগ করেছেন, ন্যাটো-কে ভাঙার চেষ্টা করছে মস্কো। তবে, ন্যাটো বা নর্থ আটলান্টিক ট্রিনিটি অর্গানাইজেশনকে ভাঙা যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রেসিডেন্ট। তাঁর দাবি, ন্যাটো উল্টে ক্রমশ শক্তিশালী হচ্ছে। ন্যাটো গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে একতা যথেষ্ট মাত্রায় রয়েছে।