রপ্তানি হবে বেসরকারি হাসপাতালে অব্যবহৃত ভ্যাকসিন  

রপ্তানি হবে বেসরকারি হাসপাতালে অব্যবহৃত ভ্যাকসিন  

আরোহী নিউজ ডেস্ক :  ৬০ লক্ষ কোভিশিল্ড ও কোভ্যাক্সিনের ডোজ  বেসরকারি হাসপাতালে অব্যবহৃত হয়ে পড়ে আছে । এবার সেই অব্যবহৃত ভ্যাকসিনের ডোজগুলিকে সংগ্রহ করে রপ্তানির ভাবনা স্বাস্থ্যমন্ত্রকের।

বেসরকারি হাসপাতালে প্রায় ১০% ভ্যাকসিন ডিসেম্বরের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের  আধিকারিক জানাচ্ছেন যে বেসরকারী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রক অব্যবহৃত ডোজগুলিকে সংগ্রহ করবে । সেই সমস্ত অব্যবহৃত ভ্যাকসিন গুলিকেই রপ্তানি করার ভাবনা রয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের। ভারতের বেসরকারি হাসপাতালে থাকা প্রায় ৬০ লক্ষ করোনা ভ্যাকসিনের অব্যবহৃত স্টক অন্যান্য দেশে রপ্তানি করা হবে এমনটাই আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।  গোটা ভারতবর্ষে ছড়িয়ে বড় মাঝারি এবং ছোট হাসপাতালগুলোতে প্রায় ৬০ লক্ষ করোনা টীকা এখনো অব্যবহৃত হয়ে পড়ে রয়েছে। যার মধ্যে প্রায় দশ শতাংশের মেয়াদ শেষ হতে চলেছে ডিসেম্বরের মধ্যে । আর সেই ভ্যাকসিন গুলোকেই এবার স্টক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। পরবর্তীকালে এই ভ্যাকসিন গুলোকেই বা এই ভ্যাকসিনের স্টক গুলিকে একত্রিত করে রপ্তানির ভাবনা রয়েছে সরকারের।

হাসপাতালগুলোতে আশ্বস্ত করা হয়েছে তাদের ভ্যাকসিনের স্টক গুলিকে রপ্তানির  জন্য একত্রিত করা হবে।  স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তরফে আরও জানানো হয়েছে রপ্তানির আগে পরীক্ষা করে মেয়াদোত্তীর্ণ  ভ্যাকসিনের ডোজগুলিকে  বাতিল করা হবে। সরকারি তথ্য অনুসারে পয়লা মে থেকে দেশে পরিচালিত সমস্ত কোভিড  নাইনটিন ডোজগুলির মাত্র ৬ শতাংশ বেসরকারি  হাসপাতালগুলোতে ব্যবহৃত হয়েছে। অব্যবহৃত সমস্ত কোভ্যাকসিন এবং কোভিশিল্ডগুলিকে এবার পুনরায় ব্যবহারের জন্য স্টক করে রপ্তানির ভাবনা ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার।