তিনটি ভিন্ন সময়ের গল্প নিয়ে আসছে ’সেদিন কুয়াশা ছিল’

আমাদের জীবনের বিভিন্ন সময়ে নানান সম্পর্ক তৈরি হয়

তিনটি ভিন্ন সময়ের গল্প নিয়ে আসছে  ’সেদিন কুয়াশা ছিল’

আরোহী নিউজডেস্ক: আমাদের জীবনের বিভিন্ন সময়ে নানান সম্পর্ক তৈরি হয়। দৈনন্দিন জীবনে সেই সমস্ত সম্পর্ক আঁকড়ে ধরেই আমরা বাঁচি। এমন কিছু সম্পর্ক থাকে যেগুলো আমরা অজান্তেই হারিয়ে ফেলি। অনেক সময় জীবনের দায়িত্ব ও কর্তব্যগুলি সামলাতে গিয়ে অন্যদিকে থাকা মানুষগুলির প্রত্যাশা পূরণ করতে পারা যায় না। তার কারণে মনের অবচেতনে পাপ বা অপরাধবোধ জন্ম নেয়। সেই রকমই তিন ধরণের সম্পর্কের গল্প নিয়েই বড় পর্দায় আসছে ‘সে দিন কুয়াশা ছিল’। 


তিনটি গল্পের মধ্যে প্রথম গল্পের প্রেক্ষাপট মূলত স্বাধীনতার আগের ঘটনা নিয়ে তৈরি। স্বাধীনতা সংগ্রামের সাথে যুক্ত যারা, স্বাধীনতার জন্য বাবা-মা আত্মীয়-স্বজনকে হারিয়েছে। ইতিহাসের পাতায় সেই ভাবে তুলে ধরা হয়নি যাদের। তাদের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য জানিয়ে এই ছবির প্রথম গল্পটি তৈরি। এই গল্প স্বাধীনতা পাওয়ার আগের যন্ত্রণা, লড়াই, সব ঘটনার এক জ্বলন্ত দলিল। প্রথম গল্পে অভিনয় করেছেন অর্ণ মুখোপাধ্যায়, সৌরসেনী মৈত্র, সবুজ বর্ধন, অর্ণব। এক বিপ্লবী চরিত্রে দেখা যাবে শৌরসেনীকে। এছাড়া অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন উপাবিলা মুখোপাধ্যায়, সুপ্রিয়, সায়ন্তন ঘোষাল সহ অনেকে। 


দ্বিতীয় গল্পটি মূলত বাবা-মা ও তাদের সন্তানের গল্প বলবে। সন্তান কাজের সূত্রে শহরে থাকে,  বাবা-মা থাকেন প্রত্যন্ত গ্রামে। কাজের ব্যস্ততার জন্য সন্তানের সাথে বাবা-মার দেখা-সাক্ষাৎ হয় না, হঠাৎ করেই ছেলের জন্মদিনে বাবা-মা হাজির হয় তারপর ঘটে যাওয়া ঘটনা প্রবাহ ছেলে বউয়ের মনে বিরক্তির উদ্রেক সৃষ্টি করে। বাবা-মায়ের প্রতি কর্তব্য না করতে পারার কারণেই অবচেতন মনে পাপ বোধ থাকে ঘটা যাওয়া ঘটনা ছেলেকে রীতিমতো বাকরুদ্ধ করে তোলে। এই ভাবেই গল্প এগোয়। এখানে অভিনয় করেছেন জিতু কমল,  পরান বন্দ্যোপাধ্যায়,  লিলি চক্রবর্তী, সায়ন্তনী গুহ ঠাকুরতা, অবন্তিকা বিশ্বাস, পরান বন্দ্যোপাধ্যায় এর নাতনি পৃথা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ অনেকে। বাবা-মায়ের চরিত্রে যথাক্রমে পরান বন্দ্যোপাধ্যায়, লিলি চক্রবর্তী ও  ছেলের চরিত্রে অভিনয় করেছেন জিতু কমল। 


তৃতীয় গল্প মূলত তিন বন্ধুর গল্প বলে। যারা বহুদিন নিজেদেরকে রাগ দুঃখ অভিমান এর পাহাড়ে লুকিয়ে রেখেছিল। প্রায় বছর 30 আগে ঘটে যাওয়া কোন এক ঘটনায় 3 জনের মধ্যে বন্ধুত্বের বিচ্ছেদ ঘটে..হঠাৎই তাদের মধ্যে একজনের দ্বারা ঠিক হয়, আবার তারা একসাথে দেখা করবে। বহুদিন পর একসাথে কাটানোর পর বাড়ি ফেরার সময় ঘটে যায় সেই শিহরণ জাগানো মুহূর্ত যা তিন বন্ধুর কাছেও অনভিপ্রেত ঘটনা। এই গল্পে অভিনয় করতে দেখা যাবে দেব শংকর হালদার এর মতো অভিনেতাকে। লেখিকা সুচিস্মিতা দেবের একটি ছোটগল্প অবলম্বনে এই গল্পের মূল কাহিনী নেওয়া হয়। ছবির শুটিং হয়েছে কলকাতা, সুন্দর গ্রাম এবং হুগলির এক গ্রামে। এই মুহূর্ত্বে ছবির শুটিং শেষ, এডিটিং এর কাজ চলছে। রনজয় ভট্টাচার্য সমগ্র ছবির সঙ্গীত পরিচালনার দায়িত্ব সামলাচ্ছেন।পরিচালক অর্ণব মিদ্যার ছবি ‘’সেদিন কুয়াশা ছিল’’ পুজোর সময় মুক্তি পেতে পারে।