কার স্বার্থরক্ষায় হচ্ছে নির্বাচন ? শাসক দলকে কটাক্ষ করে প্রশ্ন দিলীপ ঘোষের 

 কার স্বার্থরক্ষায় হচ্ছে নির্বাচন ? শাসক দলকে কটাক্ষ করে প্রশ্ন দিলীপ ঘোষের 

আরোহী নিউজ ডেস্ক : শহর এলাকার পাশাপাশি গ্রামীণ এলাকায় সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। রাজ‍্যে সংক্রমণ দ্রুতগতিতে ছড়াচ্ছে যা যথেষ্ট উদ্বেগের। করোনার বাড়বাড়ন্ত তো রয়েছেই। দেশে ঝড়ের গতিতে ছড়াচ্ছে করোনার নয়া স্ট্রেন ওমিক্রন। বর্তমানে রাজ্যের দৈনিক সংক্রমণ যেভাবে বাড়ছে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন চিকিৎসক মহল। জোর কদমে চলছে চার পুরনিগমে  ভোটের প্রস্তুতি। করোনা পরিস্থিতির জন্য পশ্চিমবঙ্গে আসন্ন পুরভোট অন্তত এক মাস পিছনোর দাবি তুলেছিল বিজেপি।

বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ আবার এই বিষয়ে একটি পোস্ট করেছেন। তিনি লিখেছেন,'যে গতিতে কোভিড সংক্রমণ বাড়ছে নির্বাচনের দিন পর্যন্ত প্রায় ৫০% মানুষ সংক্রমিত হয়ে গৃহবন্দি হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। অর্ধেক মানুষ যদি বাড়ি থেকে বেরিয়ে ভোট দিতে যেতে না পারেন তবে সেই নির্বাচনের মূল্য কতটা? কার স্বার্থ রক্ষায় এই নির্বাচন করা হচ্ছে!' 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে বলেছিলেন ,আগামী ১৫ দিন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ।আর তারপরেই ভোট এক মাস পিছিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়েছিলেন বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব । মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়েছিলেন বিজেপি নেতৃত্ব। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথাকে হাতিয়ার করে এই রাজ্যের ৪ পুরসভার ভোট অন্তত একমাস পিছিয়ে দেওয়ার দাবি তুলেছিল পদ্ম শিবির। সবমিলিয়ে করোনা পরিস্থিতিতে ৪ পুর নিগমের ভোট নিয়ে তৃণমূল বিজেপির মধ্যে তরজা চলছেই।