স্বাধীনতা দিবসেই দুই সন্তানকে কোলে নিয়ে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ মহিলার

ঘটনাটি ঘটেছে পানাগড় স্টেশন সংলগ্ন ১০২ নম্বর রেল সংলগ্ন অনুরাগপুরের কাছে

স্বাধীনতা দিবসেই দুই সন্তানকে কোলে নিয়ে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ মহিলার

আরোহী নিউজডেস্ক: স্বাধীনতা দিবসের দিনেই মর্মান্তিক ঘটনা। স্বামীর অত্যাচারের হাত থেকে রেহাই পেতে চরম পরিনতি বেছে নিলেন এক মহিলা। দুই সন্তানকে কোলে নিয়েই চলন্ত ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করলেন তিনি। সোমবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে পানাগড় স্টেশন সংলগ্ন ১০২ নম্বর রেল সংলগ্ন অনুরাগপুরের কাছে। ঘটনায় তিনজনেরই মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। মৃতদের নাম সীমা পণ্ডিত (২৬), প্রীতম (০৮) এবং প্রেম (০৬)।

 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সীমা পণ্ডিত নামে বছর তিরিশের ওই মহিলা বুদবুদ থানার ধরলা মোড়ে থাকতেন। স্থানীয়দের অভিযোগ, ওই মহিলার স্বামী নিত্যদিন মদ খেয়ে অশান্তি করতেন। এমনকি মারধোরও করতেন। রবিবার সন্ধ্যাবেলা বাড়ি ফিরেও ওই পরিবারে তুমুল অশান্তি হয়েছে বলে দাবি প্রতিবেশীদের। এই নিত্য অশান্তি থেকে মুক্তি পেতেই সীমা চরম সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে মনে করছেন এলাকাবাসী। জানা যাচ্ছে ওই মহিলা রবিবার রাতের অন্ধকারে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। সঙ্গে ছিল তাঁর দুই সন্তান। সম্ভবত, রাতেই কোনও ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়েছেন আত্মহত্যা করার জন্য। সোমবার ভোরে দেহগুলি ছিন্নভিন্ন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। যদিও সীমার স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির লোকজন এই বিষয় অস্বীকার করেছে। তাঁদের দাবি, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সামান্য অশান্তি হলেও মারধোর করা হয়নি। যদিও রেলপুলিশ দেহগুলি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।